রবিবার ২৫ অগাস্ট ২০১৯ ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রংপুরে ‘দূর কোন দূর ঠিকানায়’ উপন্যাসের পাঠউন্মোচন অনুষ্ঠিত

অমর একুশে বইমেলা উপলক্ষে রানা মাসুদের লেখা ও আইডিয়া প্রকাশন প্রকাশিত উপন্যাস ‘দূর কোন দূর ঠিকানায়’ গ্রন্থের পাঠউন্মোচন অনুষ্ঠিত হলো। গতকাল বিকাল ৪টায় আইডিয়া প্রকাশন পাঠাগারে কণ্ঠশিল্পী ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুর রহমান সাইফ ‘দূর কোন দূর ঠিকানায়’ গ্রন্থের পাঠউন্মোচন করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, লেখক মুক্তিযোদ্ধা আকবর হোসেন, লেখক ও গবেষক প্রফেসর মোহাম্মদ শাহ আলম, রেজাউল করিম মুকুল, সাংবাদিক ও লেখক আফতাব হোসেন, অধ্যক্ষ ফখরুল আনাম বেঞ্জু, সাংবাদিক জয়নাল আবেদীন, তৌহিদা খাতুন সুইটি, কবি বাদল রহমান, তৈয়বুর রহমান বাবু প্রমুখ। উল্লেখ অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রথম অংশ নেওয়া অল্প পুঁজি, বড় স্বপ্ন নিয়ে তরুণ প্রকাশক মাসুদ রানা সাকিলের আইডিয়া প্রকাশন ইতোমধ্যেই এ অঞ্চলের মুক্তিযুদ্ধ এবং ইতিহাস-ঐতিহ্যসহ বিভিন্ন বিষয়ে দেড়শতাধিক গ্রন্থ প্রকাশ করেছে। একইসাথে এ অঞ্চলের মানুষের গৌরবগাঁথা ইতিহাস-ঐতিহ্য দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়ছে।
প্রকাশক মাসুদ রানা সাকিল জানান, সৃজনশীল জ্ঞান চর্চার মানউন্নয়ন এবং শিল্প-সাহিত্যকে এগিয়ে নিতে ২০০৮ সালে যাত্রা শুরু করে আইডিয়া প্রকাশন। প্রকাশ করছে নতুন নতুন বই। তবে রংপুরের মতো জায়গায় বসে এ কাজ স্থায়ী করতে অর্থনৈতিকসহ সংকট নানামূখী। এ সংকট উত্তোরণে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতাসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং লেখক ও পাঠকের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ।
লেখক ড. শাশ্বত ভট্টাচার্য জানান, ঢাকার প্রকাশনা সংস্থায় বই প্রকাশ হলেই যে শুধু গুরুত্বপূর্ণ বই এমন ভাববার অবকাশ আর নেই। এখন ঢাকার বাইরেও অনেক প্রকাশনা সংস্থা ভালো বই প্রকাশ করছে। তার মধ্যে রংপুরের আইডিয়া প্রকাশন একটি সংস্থা। এ সংস্থা রংপুরে হওয়ায় এখানকার লেখক এবং পাঠকদেরও সুবিধা হয়েছে। লেখকদের বই প্রকাশের যে সংকট ছিল তা কাটিয়ে উঠতে পারছেন। এটি একটি আশার দিক, আনন্দের দিক, ভালো দিক।
কথাসাহিত্যিক নূরুননবী শান্ত বলেন, বাংলাদেশের সকল সেক্টরের মতো প্রকাশনা শিল্পের বিকেন্দ্রীকরণ সময়ের গুরুত্বপূর্ণ চাহিদা। রংপুরের আইডিয়া প্রকাশন উত্তরাঞ্চলে অবস্থান করেও মানসম্মত প্রকাশনা শিল্পের পুরোধা হয়ে ওঠার সম্ভাবনা ধারণ করে। এর ভেতর দিয়ে আমাদের লেখকরা রাজধানী কেন্দ্রীকতা থেকে মুক্ত হবে।
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক উমর ফারুক জানান, আইডিয়া প্রকাশন এখন উত্তরবঙ্গের লেখকদের প্রাণ প্রকাশনা সংস্থায় পরিণত হয়েছে। শুদ্ধ ও গুণগত মান বজায় রেখে সংস্থাটি পথে এগিয়ে গেলে নিঃসন্দেহে লেখক ও পাঠকসমাজ ব্যাপকভাবে উপকৃত হবে। এ সংস্থাটি উত্তরবঙ্গের লেখকদের জন্য প্রকাশনা জগতে উজ্জ্বল মাইলফলক। তাদের পথচলা বলে দেয় এক অনন্য লক্ষ্যে এগিয়ে চলেছে সংস্থাটি।
গবেষক ও লেখক রেজাউল করিম মুকুল জানান, রংপুরের আইডিয়া প্রকাশন নামের এ সংস্থাটি না থাকলে আমার পক্ষে বই প্রকাশ করা সম্ভব ছিলো না। সংস্থাটি আমার প্রকাশিত বই বাংলা একাডেমির অমর একুশে গ্রন্থমেলায় স্টল বরাদ্দ নিয়ে বই প্রদর্শন করার বিষয়টি ছোট করে দেখবার মতো নয়। এ বছরে সংস্থাটি আমার লেখা অনুসন্ধিতসু কিশোর ও যুবকদের জন্য বই ‘গল্পগুলো গণিতের’ প্রকাশের দ্বায়িত্ব নিয়েছে।
অনুবাদক মোস্তফা তোফায়েল হোসেন জানান, রংপুর থেকে ঢাকায় গিয়ে বই প্রকাশে যে সকল বাধাবিপত্তি থাকে সেসকল বাধা অতিক্রম করে বই প্রকাশ করা সহজ হয়েছে রংপুর থেকে। ঢাকার প্রকাশকরা প্রচারে বেশি আগ্রহী বইয়ের মান নিয়ন্ত্রণ করার মতো সুস্থ প্রক্রিয়া তাদের হাতে নেই। শেকসপিয়ারের হ্যামলেট এর মতো পৃথিবীখ্যাত বইয়ের অনুবাদ প্রকাশ করার ক্ষেত্রেও ঢাকার প্রকাশকদের অনিহা দেখা গেছে। এই সংকট কাটিয়ে উঠার জন্য উপযুক্ত প্রকাশক আইডিয়া প্রকাশন রংপুর।
মিঠাপুকুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আনওয়ারুল ইসলাম জানান, রংপুর অঞ্চলের মানুষ পিছিয়ে থাকার অধিকাংশ ক্ষেত্রে প্রধান কারণ হলো শিক্ষার স্বল্পতা এবং সৃজনশীল জ্ঞান অন্বেষণ বিমুখতা। আইডিয়া প্রকাশন যে কাজটি করছে তাতে একদিকে যেমন রংপুরের লেখকরা এখানে বসে অমর একুশে গ্রন্থমেলার স্বাদ গ্রহণ করছেন অন্যদিকে এখানকার সাধারণ মানুষের মাঝে সৃজনশীল জ্ঞান বিস্তারে সংস্থাটি যে ভূমিকা রাখছে তা ভবিষ্যতে আরো ব্যাপক হবে বলে মনে করি।
রংপুর বইমেলার আহŸায়ক ছড়াকার সাঈদ সাহেদুল ইসলাম জানান, উত্তরাঞ্চলের শিল্প-সাহিত্য এবং গ্রন্থ প্রকাশে ঢাকামূখী অভিযাত্রার যে বাধাগ্রস্থ অবস্থান তার পরিত্রাণ হয়েছে। এ ক্ষেত্রে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী আইডিয়া প্রকাশনের ভূমিকা অগ্রণী।