শুক্রবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২০ ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে পারভেজ মোশাররফের মৃত্যুদণ্ড

পাকিস্তানের সাবেক সামরিক শাসক পারভেজ মোশাররফকে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি বিশেষ আদালত। পাকিস্তানের ইতিহাসে এ ধরনের রায়ের ঘটনা এই প্রথম। ১৯৯৯ সালে এক সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সে সময়ের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে অপসারণ করে ২০০৮ সাল পর্যন্ত পাকিস্তান শাসন করেন মোশাররফ। গত ২০১৩ সাল থেকে বিভিন্ন মামলায় অভিযুক্ত হয়েছেন তিনি। একই বছর ৫ এপ্রিল তার ওপর বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। ২০১৬ সালের মার্চে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি প্রকাশের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই দুবাইয়ের উদ্দেশে পাকিস্তান ছাড়েন মোশাররফ। বর্তমানে সেখানেই বসবাস করছেন তিনি।

ডনের খবরে বলা হয়েছে, ২০০৭ সালের ৩ নভেম্বর জরুরি অবস্থা ঘোষণার মাধ্যমে সংবিধান বাতিলের ঘটনায় ২০১৩ সালে পারভেজ মোশাররফের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে মামলা হয়। পরের বছরের ৩১ মার্চ ওই মামলায় অভিযোগ গঠন করা হলে ওই বছরই তার বিরুদ্ধে সমস্ত প্রমাণ বিশেষ আদালতে উপস্থাপন করা হয়। পরে আপিল বিভাগ মামলার কার্যক্রমে স্থগিতাদেশ দিলে মামলার কার্যক্রম থমকে যায়। পরে ওই স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার হলে পেশোয়ার উচ্চ আদালতের বিচারপতি ওয়াকার আহদেম শেঠ এর নেতৃত্বাধীন বিশেষ আদালতের বেঞ্চ গত ১৯ নভেম্বর পারভেজ মোশাররফের মামলার শুনানি শেষ করে। সে সময় ২৮ নভেম্বর এ মামলার রায় ঘোষণার দিন নির্ধারণ করা হয়। পরে সরকার পক্ষের নতুন আবেদনের শুনানে শেষে ভিত্তিতে মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) চূড়ান্ত রায় ঘোষণা করেছে আদালত।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email