বুধবার ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ ৫ই পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

লাখো মানুষের অশ্রুসিক্ত জলে চিরশায়িত করা হলো দিনাজপুরে আ’লীগ সভাপতি আনোয়ারুল ইসলামকে

সাহেব, দিনাজপুর ঃ লাখো মানুষের ভালবাসা ও অশ্রুসিক্ত জলে চিরশায়িত করা হলো হাস্যেউজ্জল, সদালাপী, সমাজ সেবক, দিনাজপুর শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি, চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি, বিশিষ্ট সমাজসেবক মরহুম মো. আনোয়ারুল ইসলামকে। আনোয়ারুল ইসলামের মৃত্যুতে দিনাজপুর শহরের সকল দোকানপাট, ব্যবসা-বাণিজ্য সকাল থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত বন্ধ রাখা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনোয়ারুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি। গত ১৩ নভেম্বর রাত ৯টায় ভারত থেকে বাংলাদেশের দিনাজপুর বালুবাড়ীস্থ বাসভবনে মরহুমের লাশ আনার পর রাজনৈতিক, সামাজিক, পেশাজীবী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ অসংখ্য নারী পুরুষ ছুটে যায় মরহুমের বাসভবনে। কান্না আহাজারিতে আকাশ ভারি হয়ে উঠে। সৃষ্ঠি হয় এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের। ১৪ নভেম্বর বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় মরদেহ বালুবাড়িস্থ বাসভবন হতে বাসুনিয়াপট্টিস্থ আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে লাশ নিয়ে যাওয়া হয়। জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ও শহর আওয়ামী লীগ শ্রদ্ধাঞ্জলী জানান। বেলা ১১টায় গরুহাটিস্থ চেম্বার ভবনে মরহুমের লাশ নিয়ে যাওয়া হয়। দুপুর ১২টায় জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত দিনাজপুর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য মরহুম এর মরদেহ রাখা হয়। বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী সংগঠন ও সর্বস্তরের মানুষ ফুলেল শুভেচ্ছা নিয়ে মরহুম আনোয়ারুল ইসলামকে শেষ শ্রদ্ধা জানান। বাদ যোহর দুপুর ২টায় গোর এ শহীদ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে বালুবাড়িস্থ শেখ জাহাঙ্গীর কবরস্থানে মরহুমের দাফন কার্য সম্পন্ন করা হয়। জানাযা ও দাফনে অংশগ্রহন ও শ্রদ্ধাঞ্জলী জানান জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি, হাবিপ্রবির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জয়নুল আবেদীন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বজলুল হক, মোঃ আলাউদ্দীন, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান আজাদ বাবলু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান ইমদাদ সরকার, সাধারন সম্পাদক বিশ্বজিৎ ঘোষ কাঞ্চন, শহর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক খালেকুজ্জামান রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক এনাম-উল্লা-জেমী, বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক আকতারুজ্জামান জুয়েল, দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বরুপ বকসী বাচ্চু, সাধারন সম্পাদক গোলাম নবী দুলাল, দিনাজপুর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ওয়াদেুল আলম আর্টিষ্ট, সাধারন সম্পাদক মো: দেলোয়ার হোসেন, দিনাজপুর চেম্বার অব কর্মাসের সভাপতি সুজা-উর-রব, সহ-সভাপতি মানবেন্দ্র দাস মনোজ, মোসাদ্দেক হোসেন পাপ্পু, সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সভাপতি ভবানী সংকর আগাওয়ালা, সাধারন সম্পাদক সায়েদ রিয়াজ পিম, দোকান মালিক গ্রুপের সাধারন সম্পাদক জহির শাহ্, ট্রাক মালিক গ্রুপের সভাপতি শহিদুল ইসলাম, মটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক ফজলে রাব্বী, ওর্য়ার্কাসপার্টির নেতা ও সাবেক পৌর চেয়ারম্যান সৈয়দ মোসাদ্দেক হোসেন লাবু, আওয়ামী লীগ, বিএনপি , আইনজীবী, সাংবাদিক, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, জাসদ, ওর্য়াসপার্টিসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশগ্রহন করেন। জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম বলেন, সমাজ সেবার ক্ষেত্রে আনোয়ারুল ইসলামের কোন বৈষ্যম ছিল না। বিগত ১০ বছরে দিনাজপুরে যে ৩ হাজার কোটি টাকার যে উন্নয়ন হয়েছে প্রতিটি উন্নয়ন কাজে আনোয়ারুল ইসলামের সম্পৃক্ততা রয়েছে। তিনি ছিলেন অসহায়, দুঃখী ও বিপদগ্রস্থ মানুষের জন্য নিবেদিত প্রাণ। তার এ শূন্যতা দিনাজপুরবাসী আর পূরন করতে পারবে না। ব্যবসায়ী মহলে বিরাজ করছে হতাশা। সকল দোকানপাট ব্যবসা বাণিজ্য বন্ধ রাখা হয় এক দিনের জন্য। ১৫ নভেম্বর বৃহস্পতিবার মরহুমের বালুবাড়িস্থ, শুক্রবার জেলা আওয়ামী লীগ ও চেম্বারের আয়োজনে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া খায়েরের আয়োজন করা হয়েছে।