বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ৩রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিশু শ্রম নয়, শিশুর জীবন হোক স্বপ্নময় শিরোনাম শীর্ষক গোল টেবিল বৈঠক

প্রদীপ রায়,বীরগঞ্জ দিনাজপুর থেকে।।  দিনাজপুরের বীরগঞ্জে ৬নং নিজপাড়া ইউনিয়ন পরিষদে “শিশু শ্রম নয়, শিশুর জীবন হোক স্বপ্নময়” শিরোনাম শীর্ষক ২০৩০ সালের মধ্যে শিশুশ্রম মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে প্রদীপ রায়ের সভাপতিত্বে একটি গোল টেবিল বৈঠকের আয়োজন করা হয়। উক্ত গোল টেবিল বৈঠকের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব এম এ খালেক সরকার,চেয়ারম্যান, ৬নং নিজপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাইমন্ড হাসদা,শিশু সুরক্ষা অফিসার ও ইউপি সদস্য এবং ভিডিসি সভাপতিবৃন্দ। আরও উপস্থিত ছিলেন শিশু ফোরামের সকল নেতা ও নেতৃবৃন্দ। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন- বাল্যবিবাহ, নারী নির্যাতন, শিশু শ্রমে যুক্ত হওয়া শিশু দেখলেই যেন তাকে জানানো হয়। তিনি দ্রুততার সাথে পদক্ষেপ গ্রহন করবেন। তিনি আরও বলেন আমি শিশু ফোরামের সকল কার্যক্রমে সর্বদাই সাহায্য করব এবং সাথে থাকব। বিশেষ অতিথি বলেন- তৃতীয় বিশ্বের অনেক দেশেই- বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন কৌশল একটি মডেল হিসেবে গন্য হয়েছে। আজকের শিশুরাই আগামী দিনগুলোতে এই উন্নয়ন কৌশলের চালিকা শক্তি হিসেবে বিবেচিত হবে। ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ ১৯৭২ সাল হতে শিশুদের সার্বিক কল্যাণে বাংলাদেশ সরকারেরর সহযোগী হিসেবে ৩৪ জেলায় বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। বাংলাদেশ জাতীয় শিশুশ্রম জরিপ ২০১৫ অনুসারে ১২ লাখ শিশু হচ্ছে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ শ্রমে নিয়োজিত শিশু। শিশু শ্রম নিরসনে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ ৮৮,৮৫৩ ঝুঁকিপূর্ণ কর্মে নিয়োজিত শিশুদের শ্রমমুক্ত করতে বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।  এখন আমরা যারা আছি তারা যদি সবাই একত্র হতে শিশু শ্রম প্রতিরোধে কাজ করে থাকি তাহলে অবশ্যই সম্ভব হবে শিশু শ্রম প্রতিরোধ করা। শিশু শ্রম প্রতিরোধে আমাদের সবাইকে আরও সচেতন হতে হবে। পরিশেষে প্রদীপ রায়, সভাপতি ৬নং নিজপাড়া প্রত্যাশা শিশু ফোরাম তিনি বলেন সকল শিশু ফোরামের সভাপতিকে আরও দৃঢ় ভাবে কার্যক্রম গুলো বাস্তবায়ন করার জন্য। তিনি বলেন আমরা শিশুরা যদি শিশুদের কষ্ট না বুঝি তাহলে শিশু শ্রম দিন দিন বেরেই যাবে তাই আমাদের উচিৎ শিশু শ্রমে যুক্ত হওয়া শিশুদের কথা শুনা এবং তার বাবার সাথে সেই বিষয়ে কথা বলা তাহলে সম্ভব হবে শিশু শ্রম নিরসন করা। পরিশেষে বলেন বাংলাদেশ সরকারের শিশুশ্রম নিরসনে সকল প্রয়াসে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ সহযোগী হিসেবে কাজ করতে আগ্রহী। যদি সকলে মিলে আমরা কাজ করি তাহলে টেকশই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) ৮.৭ লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ২০২৫ সালের মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ খাত হতে শিশুশ্রম বন্ধ করতে সক্ষম হবো এবং শিশু বান্ধব পরিবেশ গড়তে পারবো।