বৃহস্পতিবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

সর্বোচ্চ শক্তির ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল উত্তর কোরিয়া

inter
উত্তর কোরিয়া আজ বুধবার ভোরে নতুন করে আন্তঃমহাদেশীয় সর্বোচ্চ শক্তির ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে।
উত্তর কোরিয়ার দাবি, এটি যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে আঘাত হানতে সক্ষম।
যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস বলেছেন, দেশটি বিশ্বের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে।
এর আগে পেন্টাগন জানিয়েছে, দূরপাল্লার এ ক্ষেপণাস্ত্রটি ১ হাজার কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে জাপানের সাগরে গিয়ে পড়েছে। গত সেপ্টেম্বরে সর্বশেষ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছিল উত্তর কোরিয়া।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, বিষয়টির যথাযথ জবাব দেয়া হবে।
এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেমস ম্যাটিস হোয়াইট হাউসে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বিষয়টি অবহিত করে, সেখানেই গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন।
দক্ষিণ কোরিয়া বলছে, দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রটি উত্তর কোরিয়ার রাজধানীর পূর্ব দিক থেকে ছোঁড়া হয়।
পরমাণু কর্মসূচী নিয়ে উদ্বেগ তীব্র সমালোচনা ও আন্তর্জাতিক অবরোধের মধ্যেও ২ মাস পর আবারও এমন পরীক্ষা চালানো হলো।
অব্যাহত আন্তর্জাতিক চাপের মধ্যেও উত্তর কোরিয়ার আবারও দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষায় সরব বিশ্ব নেতারা।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন যে, বিষয়টি আমরা দেখছি। জেনারেল ম্যাটিস আমাদের সঙ্গেই আছেন এবং এ নিয়ে দীর্ঘ আলোচনাও হচ্ছে।
আসলে, যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে- সেটা আমরা সামলে নেব।
এদিকে পিয়ংইয়ংয়ের এমন উস্কানি মূলক আচরণের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে জাপান। দেশটির প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে জরুরি সভার আহ্বান করেছেন।
দেশটির সরকারের মুখপাত্র ইয়োশিহিডে সুগা বলেছেন, ‘আজ রাত ৩টার কিছু পর উত্তর কোরিয়ার পূর্ব উপকূল থেকে যে ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোড়া হয় তা আমাদের নিবিড় অর্থনৈতিক অঞ্চলের মধ্যে এসে পড়েছে। আমরা আর কোনোভাবেই তাদের এসব উস্কানিমূলক আচরণ মেনে নেব না, এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’
দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট আন্তর্জাতিক মহলের কাছে পিয়ং ইয়ংয়ের বিরুদ্ধে ক্রমাগত অবরোধ আরোপের আহ্বান জানিয়েছেন।
প্রতিবাদ জানিয়েছে ব্রিটেন এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নও।
সূত্র : বিবিসি