বৃহস্পতিবার ৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সাকিবকে বিন্দুমাত্র ছাড় নয় : পাপন

এক ঝড় না কাটতেই আরেক ঝড়ের কবলে বাংলাদেশের ক্রিকেট। এবার কাঠগড়ায় বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। নিয়ম না মেনে গ্রামীণফোনের সঙ্গে চুক্তি করেছেন সাকিব আল হাসান। যে কারণে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, সাকিবকে বিন্দুমাত্র ছাড় দেওয়া হবে না। আজ শনিবার বিকেলে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে সংবাদ মাধ্যমকে বোর্ড প্রধান বলেছেন, ‘আমাদের আইন অনুযায়ী কোনোভাবেই খেলোয়াড়রা এটা করতে পারে না। সেটা টেলিকম কোম্পানি যেমন জানে, তেমনি খেলোয়াড়রাও জানে। সাকিব এটা কেন করলো আমরা জানি না। তারপরও আমরা তাকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিচ্ছি।  তবে এটা বলতে পারি, আইন অনুযায়ী একজন ক্রিকেটার কোনও টেলিকম কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করতে পারে না।’

গ্রামীণফোনের সঙ্গে মোটা অঙ্কের চুক্তি করেছেন সাকিব। কিন্তু আগেভাগে জানাননি বোর্ডকে।  গত ২২ অক্টোবর গ্রামীণফোনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন সাকিব। সেদিন জিপি হাউজে এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেছেন, ‘গ্রামীণফোনের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আমি আনন্দিত। আমার বিশ্বাস, গ্রামীণফোনের সঙ্গী হয়ে দেশকে ও দেশের ডিজিটাল খাতকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবো।’ বোর্ডের অনুমোদন ছাড়া যে কোনো ক্রিকেটারের বিজ্ঞাপন বা নতুন কোনো চুক্তিতে রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। ক্রিকেটারদের বলে দেয়া আছে, টিম স্পন্সরদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কোনো চুক্তিতে যাওয়া যাবে না। কিন্তু সাকিব সেটা তোয়াক্কা করেননি। এ নিয়েই ঝামেলা। পাপন জানিয়েছেন, সাকিবের কাছে প্রথমে ব্যাখ্যা চাওয়া হবে। পুরো বিষয়টি বোর্ডের সঙ্গে থাকা চুক্তির নিয়ম মেনে হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হবে। এ বিজ্ঞাপনে চুক্তির বরখেলাপ ঘটলে সাকিবের কাছে ক্ষতিপূরণও দাবি করবে বোর্ড। পাশাপাশি গ্রামীণফোনকেও লিগ্যাল নোটিশ পাঠাবেন বিসিবি বিগ বস।

শনিবার মিরপুরের শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হঠাৎ হাজির বিসিবি সভাপতি। সেখানেই নতুন করে জানান, সাকিবকে কোনো ধরনের ছাড় দেবেন না তারা। সাকিবকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো নিয়ে পাপন বলেন, ‘আমাদের আইন অনুযায়ী এটা কোনোভাবেই করতে পারে না। এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। ওই টেলিকম কোম্পানিও জানে, খেলোয়াড়রাও জানে এটা চুক্তিতে নেই। কাজেই এটা কেন করলো, তবে ওকে তো আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিতে হবে। এজন্য আমরা চিঠি দিয়েছি। এতটুকুই বলতে পারি এটা করতে পারে না।’ বোর্ডের নিয়ম হয়তো ভঙ্গ হয়েছে। তবে সামনে গুরুত্বপূর্ণ ভারত সফর। সেই দিকটি বিবেচনায় কোনো ছাড় কি দেয়া হবে? পাপন পরিষ্কার ভাষায় জানিয়ে দেন, ‘ছাড় দেয়ার প্রশ্নই আসে না।’