বুধবার ৩ মার্চ ২০২১ ১৮ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সৈয়দপুরে ভূমিদস্যু কার্তিক রায়ের নির্যাতনে হিন্দুরা অতিষ্ঠ, বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

মোঃ জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতাঃ নীলফামারীর সৈয়দপুরে রাজনৈতিক দলের প্রভাব খাটিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে কার্তিক রায় নামে এক চিহ্নিত ভূমিদস্যু। মন্দিরের নামে জলাশয় দখল ও বরাদ্ধকৃত অর্থ আত্মসাৎ এবং দীর্ঘ দিন ধরে সন্ত্রাসী কায়দায় সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর অত্যাচার, নির্যাতন চালিয়ে আসছে সে। এরই ধারাবাহিকতায় এলাকার এক যুবকের ক্রয়কৃত জমি দখল করতে মারডাং করে তার পা ভেঙ্গে দিয়েছে কার্তিক গং। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে। 
এদিকে গ্রেফতারের আগে মামলা দায়ের করায় ওই ভূমিদস্যু লক্ষ্যাধিক টাকার ইরি-বোরো বীজতলা ধ্বংস করে। ভয়ে মুখ না খুললেও গ্রেফতারের পর লোকজনের মুখে বেরিয়ে আসছে তার নানা অপকর্মের কথা। ১৭ জানুয়ারী রবিবার স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মালনে তার এসব অপকর্ম তুলে ধরেন সূর্যমূখী তরুণ সংঘ দূর্গাপূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিমল চন্দ্র রায়, বিষ্ণু কুমার রায়, উদয় চন্দ্র রায়, চিনি চন্দ্র রায়, বিপ্লব চন্দ্র রায় প্রমূখ। তাদের পক্ষে কমিটির সাধারণ সম্পাদক সুশান্ত কুমার রায় তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, উপজেলার  বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের কয়া মিস্ত্রীপাড়া এলাকার কার্তিক চন্দ্র রায় সনাতন ধর্মের হওয়া সত্বেও একটি রাজনৈতিক দলের পরিচয়ে দীর্ঘ দিন থেকে এলাকার একই ধর্মের লোকজনের জায়গা দখল, মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানিসহ নানা অত্যাচার, নির্যাতন করে আসছে। 
এছাড়া তাদের ধর্মীয় উপসানালয়ের নামে বরাদ্ধকৃত জলাশয়ে দখলে নিয়ে নিজে মাছ চাষ করছে। কমিটিতে না থেকেও প্রতারণার মাধ্যমে মন্দির সংস্কারে নামে সরকারের দেয়া ২৮ হাজার টাকাসহ পূঁজোর সময় ভূয়া চাঁদার রশিদের মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কয়েক লাখ টাকা আদায় করে আত্মসাৎ করেছে। নন জুডিশিয়াল স্টাম্পের চুক্তির গদে জালিয়াতি করে এক হাজার টাকাকে একাশি হাজার করাসহ স্বাক্ষর জালের ঘটনা ঘটিয়ে মামলায় জড়িয়ে বছরের পর বছর আদালতের ঘানি টানতে বাধ্য করেছে অনেককে। এসব মামলায় পরাজিত হলেও থেমে নেই তার কুকর্ম। এমনকি আদালতে নিজের স্থলে অন্যকে দাড় করিয়ে মিথ্যে বাদী উপস্থাপনের মত জোচ্চুরিও করেছে কার্তিক রায়। যা ধরা পড়লেও বন্ধ হয়নি তার প্রতারণা।
গত ৭ জানুয়ারী এলাকার বিমল চন্দ্র রায় নামে এক নিরিহ যুবকের ক্রয়কৃত জমি দখলের চেষ্টা করে। এতে ওই যুবক বাধা দেয়ায় কার্তিক তার সন্ত্রাসী বাহিনীর মাধ্যমে ওই যুবককে বেধড়ক মাড়ডাং করে বাম পা ভেঙ্গে দেয়। বর্তমানে যুবকটি পঙ্গুত্ব জীবন যাপন করছেন। কার্তিক রায়কে গ্রেফতার করায় পুলিশকে ধন্যবাদ জানানোর পাশা-পাশি মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারের দাবী জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে। কেননা কার্তিক ও তার ছেলে নিতু আটক হলেও সাঙ্গপাঙ্গরা এখনও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে এবং নানা হুমকিও দিচ্ছে। এতে অভিযোগকারীরা নিরাপত্তাহীনতায় চরম আতঙ্কের মধ্যে দিনাতিপাত করছে।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email