বুধবার ৩ মার্চ ২০২১ ১৮ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

হাকিমপুর পৌরসভা নির্বাচন জমে উঠেছে প্রচার-প্রচারণা

মোঃ আব্দুল আজিজ, হিলি প্রতিনিধি ॥ তৃতীয় ধাপে পৌরসভা নির্বাচনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে দিনাজপুরের সীমান্তবর্তী হাকিমপুর (হিলি) পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা তত তুঙ্গে উঠছে। এই নির্বাচনে গত ১১ জানুয়ারি প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন ৪ মেয়র, ৩৭ কাউন্সিলর ও ১০ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদের প্রার্থীরা। গণসংযোগ চালিয়ে ভোট প্রার্থনা করে চলেছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। দিচ্ছেন এলাকার উন্নয়নে নানা প্রতিশ্রুতিও। ইতোমধ্যেই সকল প্রার্থীদের প্রতীক সংবলিত ব্যানার-পোস্টারে ছেয়ে গেছে পৌর এলাকার গুরুত্বপূর্ণ স্থানসহ রাস্তা-ঘাট অলি-গলি। হাট-বাজার, চায়ের দোকান, পাড়া-মহল্লা, বিভিন্ন অফিস, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ সর্বত্র চলছে নির্বাচনী আমেজ। উৎসবমুখর ও সরগরম পরিবেশে ভোটাররা প্রার্থীদের নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করছেন।

১৯৯৯ সালে গঠিত হয় হাকিমপুর পৌরসভা। হিলি স্থলবন্দরও এখানে অবস্থিত। আগামী ৩০ জানুয়ারি ব্যালটের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে এই পৌরসভার নির্বাচন। নির্বাচনে মেয়র পদে ৪জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হলেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ মনোনীত জামিল হোসেন চলন্ত (নৌকা), বিএনপি মনোনীত সাখাওয়াত হোসেন শিল্পী (ধানের শীষ), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত সুরুজ আলী শেখ (হাতপাখা) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মিশর উদ্দীন সুজন (নারিকেল গাছ) ।

আওয়ামী লীগ থেকে নৌকা প্রতিক মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত জানান, ব্যক্তি ইমেজ, উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে সকল ভেদাভেদ ভুলে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে উৎফুল্ল মেজাজে ভোটারদের কাছে ভোট চাইছেন। নির্বাচনী মাঠ নিজের দখলে রাখতে ভোর থেকে গভীর রাত অবধি লিফলেট বিতরণ, শোডাউন ও ভোটারদের সঙ্গে কুশল বিনিময়ের মাধ্যমে জনসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। নেতাকর্মী ও সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে করছেন উঠান বৈঠক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও চালাচ্ছেন সরব প্রচারণা। সর্বোপরি নৌকাকে বিজয়ী করতে একাট্টা আওয়ামী লীগ।

এদিকে বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন শিল্পী জানান, গত ২বার হাকিমপুর (হিলি) পৌরসভার মেয়র ছিলেন তিনি। নেতাকর্মী ও সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে চালাচ্ছেন সভা-সমাবেশ। পুরুষ ভোটারদের চেয়ে এবার প্রাধান্য দিচ্ছেন নারী ভোটারদের। তাদের নিয়ে আয়োজন করছেন উঠান বৈঠকের। সেখানে তারা চাচ্ছেন ভোট ও দোয়া। পাশাপাশি দিচ্ছেন এলাকার উন্নয়নের নানা প্রতিশ্রুতি।

অন্যদিকে নির্বাচনী মাঠে নৌকা এবং ধানের শীষ দাপিয়ে বেড়ালেও তেমনটি দৃশ্যমান নয় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সুরুজ আলী শেখের (হাতপাখা) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিশর উদ্দীন সুজনের (নারিকেল গাছ)। অনেকটা নিরবে চালাচ্ছে প্রচারণা। শুধু চলছে তাদের প্রচার মাইকিং আর মাঝে মধ্যে কিছু স্থানে দেখা যাচ্ছে ব্যানার-পোস্টারসহ লিফলেট বিতরণ।

হাকিমপুর পৌর এলাকার ভোটাররা জানান, বর্তমান মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত ও সাবেক ২বারের মেয়র সাখাওয়াত হোসেন শিল্পীর মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে হাড্ডাহাড্ডি। একদিকে নৌকা প্রতীক নিয়ে জামিল হোসেন চলন্ত ক্ষমতা ধরে রাখতে আপ্রাণ চেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছেন অপরদিকে সাখাওয়াত হোসেন শিল্পী ধানের শীষ নিয়ে বিজয়ী হওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন। রিটার্নিং অফিসার কামরুল ইসলাম জানান, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচন করার লক্ষ্যে ইতোমধ্যেই সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এবার হাকিমপুর পৌরসভা নির্বাচনে ১২টি ভোট কেন্দ্রে ৭৫টি ভোটকক্ষে মোট ২১ হাজার ৬৩১ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। তিনি জানান, আচরণ বিধিমালা দেখভালের জন্য ৯জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটসহ ২জন জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট এবং আইন শৃংখলা দেখভালের জন্য র‌্যাব, বিজিবি, আনসার ব্যাটালিয়ন নিয়োজিত থাকবেন।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email