রবিবার ১৬ জুন ২০১৯ ২রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

হাবিপ্রবির উপাচার্যসহ শতাধিক শিক্ষক অবরুদ্ধ

হাবিপ্রবি প্রতিনিধি : ক্লাস ও ক্লাস পরীক্ষা চালুর দাবিতে প্রশাসনিক ভবনে উপাচার্যসহ শতাধিক শিক্ষককে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। চলমান সংকট সমাধানের লক্ষ্যে আলোচনায় বসা শিক্ষকরা যতক্ষণ পর্যন্ত না সংকট নিরসন করতে পারবেন ততক্ষণ পর্যন্ত শিক্ষকদের অবরুদ্ধ করে রাখার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। প্রশাসনিক ভবনের সকল ফটকে তালা ঝুলিয়ে প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান করছেন শিক্ষার্থীরা।

দীর্ঘ এক মাস বন্ধ থাকার পর আজ বৃহস্পতিবার খুলেছে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।  রবিবার থেকে ক্লাস ও পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা। কিন্তু নানা দাবিতে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম এবং বর্ধিত বেতনের দাবিতে ৫৭ জন সহকারী অধ্যাপকের আন্দোলনের মুখে বন্ধ হয়ে যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ক্লাস ও পরীক্ষা। বুধবার সংকট নিরসনে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দেন শিক্ষার্থীরা। একই সঙ্গে সংকট নিরসন না হলে ও শিক্ষকরা ক্লাসে না ফিরলে বিশ্ববিদ্যালয় অচল করে দেয়ার ঘোষণা দেন তারা। এ ঘটনার পর উপাচার্য অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাসেম প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের শিক্ষক ও বর্ধিত বেতনের দাবিতে আন্দোলনরত ৫৭ জন সহকারী অধ্যাপককে আলোচনার আহ্বান জানান। বৃহস্পতিবার প্রশাসনিক ভবনে উপাচার্যের কার্যালয়ে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের শিক্ষকদের সঙ্গে আলোচনায় বসা হয়। প্রায় এক ঘণ্টা আলোচনার পর প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের শিক্ষকরা বর্ধিত বেতনের দাবিতে আন্দোলনরত ৫৭ জন সহকারী অধ্যাপককে আলোচনায় ডাকার দাবি জানান। দুপুর ১২টায় আন্দোলনরত ৫৭ জন সহকারী অধ্যাপক আলোচনায় অংশ নেন। এ সময় সংকট নিরসনের কোনো সিদ্ধান্ত না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা প্রশাসনিক ভবনের সকল ফটকে তালা ঝুলিয়ে প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেন। রাত ৭টা পর্যন্ত শিক্ষকরা অবরুদ্ধ রয়েছেন। শিক্ষার্থীরা শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান করছেন। ক্যাম্পাসের বাইরে অতিরিক্ত পুলিশ রয়েছে। এ বিষয়ে শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা অনেক নাটক দেখেছি। সকল পক্ষ প্রশাসনিক ভবনের ভেতরে আলোচনার নামে নাটক করছেন। যতক্ষণ পর্যন্ত উপাচার্যসহ সকল পক্ষ সংকট নিরসন হয়েছে বলে ঘোষণা না দেবেন ততক্ষণ পর্যন্ত তারা অবরুদ্ধ থাকবেন। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. সফিউল আলম বলেন, আলোচনায় এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। শিক্ষার্থীরা সাত ঘণ্টা ধরে ক্লাস ও পরীক্ষার দাবিতে উপাচার্যসহ শিক্ষকদের অবরুদ্ধ করে রেখেছে। গেটে শিক্ষার্থীরা অবস্থান করছেন।