মঙ্গলবার ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ ৪ঠা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

হার দিয়ে এশিয়া কাপ শুরু বাংলাদেশের

পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত ইমার্জিং এশিয়া কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাতের কাছে ৯৭ রানের হার দিয়ে টুর্নামেন্টে যাত্রা শুরু বাংলাদেশের।

সবকিছু উপেক্ষা করে নুরুল হাসান সোহানের নেতৃত্বে পাকিস্তানে ইমার্জিং এশিয়া কাপ খেলতে গিয়েছে বাংলাদেশ। আর করাচিতেই নিজেদের প্রথম ম্যাচেই আরব আমিরাতের কাছে হেরে বসেছেন নুরুল হাসানরা। বৃহস্পতিবার টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন আরব আমিরাতের অধিনায়ক রোহান মুস্তফা।

ব্যাটিংয়ে নেমে দারুণ শুরু এনে দেন দুই আরব আমিরাত ওপেনার রোহান ও আশফাক আহমেদ।

দুইজন মিলে স্কোরকার্ডে যোগ করেন শতরানের জুটি। রোহান-আশফাকের ১০২ রানের জুটি ভাঙেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ব্যক্তিগত ৪০ রানে নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে ক্যাচ তুলে দেন রোহান। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে গোলাম শাব্বেরকে নিয়ে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে যান আশফাক। সেঞ্চুরির কাছে গিয়েও দেখা পাননি সেটির। ব্যক্তিগত ৯৮ রানে খালেদের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে আশফাক। দলীয় এক রান যোগ করতেই আরও একটি উইকেটের পতন ঘটে আরব আমিরাতের।

তবে ফিফটি তুলে নেন শাব্বের। ৫২ করে শরিফুলের বলে আউট হন তিনি। আনোয়ারের ৩৪ ও শেষদিকে মোহাম্মদ বুটার ১৩ ও নাভীদের ১২ রানে ২৬৭ রান সংগ্রহ করে আরব আমিরাত। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৪টি পান শরিফুল এবং ৩টি পান খালেদ।
এদিকে আরব আমিরাতের দেওয়া টার্গেট তাড়া করতে নেমে দলীয় ৩০ রানের আগেই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। দলীয় ২৮ রানে জাকির হাসানকে সাজঘরে ফেরান কাদের। মিজানুর রহমানকে সঙ্গ দিতে পারেননি নাজমুল হোসেন শান্তও। ব্যক্তিগত ৮ রানে রাজার বলে আউট হন শান্ত। ইয়াসীর আলীকে সঙ্গে নিয়ে বড় কিছুর ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন মিজানুর। তবে দলীয় ৭৯ রানে, ৪৩ করা মিজানুরকে সাজঘরে ফেরান ইমরান হায়দার। কোন রান না করেই ইমরানের বলে আউট হন মোসাদ্দেক হোসেন।

রান পাননি অধিনায়ক ও উইকেটকিপার নুরুল হাসানও। ১৮ রান করে ইমরানের বলে বোল্ড হন আফিফ হোসেন ধ্রুব। নবম উইকেট জুটিতে শফিউল ও শরিফুল শুধু হারের ব্যবধানটাই কমান। ৩২ করে আউট হন শফিউল এবং ৩১ করে অপরাজিত থাকেন শরিফুল। শেষ পর্যন্ত ১৭০ রানেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। আরব আমিরাতের হয়ে ৪ উইকেট করে পেয়েছেন ইমরান হায়দার ও আহমেদ রাজা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

সংযুক্ত আরব আমিরাত ২৬৭:

আশফাক ৯৮, শাব্বের ৫২: শরিফুল ৪-৫৫

বাংলাদেশ ১৭০:
মিজানুর ৪৩, শফিউল ৩২, শরিফুল ৩১, মোসাদ্দেক ০, নুরুল হাসান ০, আফিফ ১৮: ইমরান ৪-৩৫

ফলাফল: ৯৭ রানে জয়ী আরব আমিরাত।