বৃহস্পতিবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

হুইল চেয়ার পেলো সেই শাররীক প্রতিবন্ধী লকেশ চন্দ্র রায়

Birganj Somiti

দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ এবারের প্রলয়ংকরী বন্যায় যখন সহায় সম্বল সব ভেসে যাচ্ছিল-তখন শাররীক প্রতিবন্ধী সন্তানকে বাঁচাবে ? না দরিদ্র পরিবারের সহায়-সম্বল বাঁচাবে ? এমন এক কঠিন বাস্তবতায় সহায় সম্বল যা ছিলো, তার সব প্রলয়ংকরী বন্যা নিয়ে গেলেও জীবন দিয়ে রক্ষা করেছে নিজের শাররীক প্রতিবন্ধী সন্তানটিকে। দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার নিজপাড়া গ্রামে দরিদ্র ভাগ্যমনি রায়ের এই দুর্ভাগ্যের অবস্থা দেখে অবশেষে এগিয়ে আসে বীরগঞ্জ সমিতি। সেসময় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র এই পরিবারটিকে বীরগঞ্জ সমিতি সার্বিক সহযোগিতার পাশাপাশি শাররীক প্রতিবন্ধী লকেশ চন্দ্র রায় (১৩)-কে সোমবার দিয়েছে একটি হুইল চেয়ার।

বীরগঞ্জ উপজেলার নিজপাড়া গ্রামের বকুল চন্দ্র রায় ও ভাগ্যমনি রায়ের দু’সন্তানের মধ্যে শাররীক প্রতিবন্ধী লকেশ চন্দ্র রায় (১৩) পঞ্চম শ্রেনীতে পড়ে পাশ্ববর্তী নিজপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে, আরেকজন তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্রী পূজা রায় (৮) যায় একই বিদ্যালয়ে। বকুল রায় ও ভাগ্যমনি দুজনেই কৃষি শ্রমিক। সম্পত্তি বলতে বাড়ীর ভিটে মাটিটুকু।

বন্যার সময় তাদের এই দৈন্য-দশা দেখে এগিয়ে আসে বীরগঞ্জ সমিতি। সেই সময় সব জানার পর সাহায্যের পাশাপাশি বীরগঞ্জ সমিতি শিশুটিকে একটি হুইল চেয়ার প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

সেই সিদ্ধান্ত মোতাবেক সোমবার সকালে প্রতিবন্ধি শিশুটির বিদ্যালয়ে গিয়ে হুইল চেয়ার তুলে দেয় বীরগঞ্জ সমিতির সাধারণ সম্পাদক এবং লাইম লাইট ফ্যাশন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও শিল্পপতি মোঃ সফিউল ইসলাম জুয়েল।

এ সময় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সয়েল, ওয়াটার এন্ড এনভায়রনমেন্ট ডিসিপ্লিন সহযোগী অধ্যাপক মোঃ সানাউল ইসলাম (বিপ্লব), নিজপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মোছাঃ ইয়াকুদ আল-জান্নাত, বীরগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক নজরুল ইসলাম বুলু, বীরগঞ্জ প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক মোঃ আব্দুর রাজ্জাক সহ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক-শিক্ষিকাগণ উপস্থিত ছিলেন।

হুইল চেয়ার পেয়ে আবেগাপ্লুত কন্ঠে ভাগ্যমনি জানালেন, আমার এই শাররীক প্রতিবন্ধী ছেলেকে কষ্ট করে নিয়ে বেড়াতে হবে না। সে এখন নিজেই স্কুলে যেতে পারবে। এজন্য বীরগঞ্জ সমিতিকে ধন্যবাদ জানান তিনি।