বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অবরোধের সুযোগে দিনাজপুরে হত্যা মামলার পলাতক ৯ আসামির বাড়ি লুট

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ অবরোধের সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার পার্শ্ববর্তী পার্বতীপুরে হত্যা মামলার ৯  আসামির বাড়িঘর লুট, টাকাসহ ১৮ টি গরম্ন নিয়ে পালিয়েছে মামলার বাদীপক্ষের ২০-২৫ জনের একটি দুবৃত্ত দল। গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায়  উপজেলার কুতুবপুর গ্রামে দুবৃত্তরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

জানা গেছে, গত ১২ আগষ্ট  জমি সংক্রান্ত বিরোধে আমবাড়ী কুতুবপুর গ্রামের বৃদ্ধ শমসের আলীর (৮০) হত্যা মামলার বাদী এনামুল হক গত বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় মামলার ধার্য্য তারিখে দিনাজপুর জজ কোটে  যাওয়ার পথে ফুলবাড়ী- দিনাজপুর মহাসড়কের চিরিরবন্দর সিএন্ডবি মোড়ে অবরোধকারীরা তাদের গতিরোধ করে মোটর সাইকেল ভাঙচুর ও মারধর করলে এনামুল আহত হয়। এ ঘটনার জের ধরে ওইদিনই অপরবাদী দেলোয়ারের নের্তৃত্বে ২০-২৫ জনের একটি দুবৃত্ত দল   পালাতক ও হাজতে থাকা ৯ আসামির বাড়ীঘর ভাঙচুর বিভিন্ন মালামাল, ১৮টি গরম্ন নগদ টাকাসহ সবর্ণালঙ্কার লুট করে নিয়ে যায়। এ সময় বাড়িতে থাকা শিশুসহ মহিলা সদস্যরা প্রান ভয়ে আত্নগোপন করে। সরজমিন ঘটনাস্থলে গেলে অসুস্থ্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলতাফ হোসেন জানান, দুবৃত্তরা তার বাড়িতে ঢুকে বাড়ীঘরের দরজা জানালা আসবাবপত্র ভাঙচুর, ৪টি গরম্ন, একটি ভ্যান ও দু’টি ছাগল নিয়ে যায়। সে সময় তিনি প্রান ভয়ে ঘরের খাটের নীচে আত্নগোপন করেন। আসামি মমতাজ উদ্দিনের স্ত্রী মনজিলা বেগম জানান, হামলাকারীরা দুপুরে অতর্কিতভাবে  বাড়ীতে প্রবেশ করে ৩টি গরম্ন, ধান ৩ বস্তা লুট করে বাড়ীর বিভিন্ন আসবার পত্র ভাঙচুর করে চলে যায়। আসামি মিজানুরের মা মিনারা বেগম জানান, একই সময়  ২০/২৫ জন হামলাকারী তাদের বাড়ীর সদর দরজা ভেঙ্গে বাড়িতে প্রবেশ করে ২ বস্তা চাল, একটি গরম্ন লুট ও  ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে। আসামি রফিকুলের স্ত্রী আকতার বানু জানান, দুপুরে  ২০-২৫  জনের একটি সন্ত্রাসী দল বাড়ির পিছনের দরজা ভেঙ্গে বাড়ীতে প্রবেশ করে দু’টি গরম্ন, ৫ বস্তা চাল, ৫ বসত্মা ধান, হাতের ও কানের সবর্ণালঙ্কার নিয়ে যায়। হাজতে থাকা আসামি খায়রম্নল ইসলামের স্ত্রী ছালমা খাতুন জানান,  বাদী দেলোয়ারের নের্তৃত্বে একদল হামলাকারী লোহার ভেঙ্গে বাড়িতে প্রবেশ করে বাড়ীর আসবাবপত্র ভাংচুর, ১০ বসত্মা, ৪টি গরম্ন ও নগদ ধান গরম্ন ও ১০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। আসামি লোকমানের স্ত্রী জানান, প্রাচীর টপকে বাদী দেলোয়ার ও তার লোকজন বাড়ীতে ঢুকে বিভিন্ন জিনিসপত্র ভাঙচুর করে একটি গরম্ন ৫টি ছাগল ও  ৫ বস্তা ধান নিয়ে যায়। আসামি মোহাম্মদ আলীর স্ত্রী রম্নবিনা ইয়াসমিন জানান, দুপুরে বাড়ির দরজা ভেঙ্গে  বাদী দেলোয়ারসহ বেশ কয়েকজন বাড়িতে ঢুকে বাড়ীর আসবাবপত্র তছনছ করে দু’টি গরম্ন ও নগদ ১০ হাজার টাকা নিয়ে যায়। ও আসামি আনোয়ার হোসেনের বাড়ী থেকে ১টি গরম্ন ও এক ড্রাম চাল লুট করে নিযে যায়। উলে­খ্য লুট হওয়া ১৮টি গরম্নর মধ্যে ১০টি গরম্ন ওইদিনই রাত সাড়ে ১১টায় মোসত্মফাপুর ইউনিয়নের বাজিতপুর গ্রামের ফাঁকা মাঠে  এলাকাবাসী দেখতে পেয়ে চৌকিদার বাচকি ও ইউপি সদস্য মেহেদুলকে খবর দিলে গরম্নগুলি উদ্ধার করে চৌকিদারের বাড়ীতে রাখা হয়। এ ব্যাপারে আসামি মিজানুর রহমান পরদিন শুক্রবার সকালে পার্বতীপুর থানায় লিখিত অভিযোগপত্র দায়ের করেন। বিকালে ঘটনার তদমত্মকারী কর্মকর্তা এস আই আরজু মোঃ সাজ্জাদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email