বৃহস্পতিবার ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অবশেষে শিক্ষক বিনয় চন্দ্রের বিরূদ্ধে মামলা

অবশেষে সচিত্র সংবাদ প্রকাশের পর

দিনাজপুরের বিরল উপজেলার গৌরীপুর

গ্রামের লম্পট শিক্ষক বিনয় চন্দ্রের বিরূদ্ধে

মামলা রজু করা হয়েছে। বুধবার বিকালে

বিরল থানায় দায়েরকৃত এ মামলায় তাঁর

বড় ভাই ও বৌদিকেও আসামী করা

হয়েছে। এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি বিরল

উপজেলায় টক অব দ্যা টাউনে পরিণত

হয়। সেই সাথে বিষয়টি নিয়ে পুরো বিরল

জুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

বুধবার দুপুর ১২টায় বিরল থানার এস.আই

আজিজের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল

লম্পট প্রেমিক শিক্ষক বিনয় চন্দ্রের বাড়িতে

অনশনরত প্রেমিকা মুক্তা রাণীকে উদ্ধার

করে থানায় নিয়ে আসে। বিকালে মুক্তার

বড় ভাই নয়ন চন্দ্র বাদী হয়ে ২০০০ সালের

নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ওই মামলা

দায়ের করেন। মামলা নং-১০। লম্পট

শিক্ষকের বিরূদ্ধে শুধু মামলাই যথেষ্ট নয়,

তাকে অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক

শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছেন এলাকার

সচেতন ব্যক্তিবর্গ। এ ব্যাপারে উপজেলা

শিক্ষা অফিসার প্রত্যুষ কুমার চন্দ্র জানান,

বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। প্রয়োজনীয়

কাগজপত্র পাওয়া মাত্রই আমি উর্ধত্বন

কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন

করবো।

উল্লেখ্য, দিনাজপুরের বিরল উপজেলার ৯

নং মঙ্গলপুর ইউনিয়নের গৌরিপুর গ্রামের

জগেন্দ্র অধিকারী টেপা সাহা’র পুত্র

সেনগ্রাম নিমতলা সরকারী প্রাথমিক

বিদ্যালয়ের শিক্ষক বিনয় চন্দ্র অধিকারী’র

সাথে প্রায় ২ বছর আগে বোচাগঞ্জ

উপজেলার বাসুদেবপুর গ্রামের কেশরী

মোহন দেব শর্মার কন্যা কলেজ পড়ুয়া

মুক্তা রানীর সাথে মোবাইলে প্রেমের সম্পর্ক

গড়ে উঠে। লম্পট শিক্ষক বিনয় চন্দ্র

মুক্তাকে বিয়ে করবে বলে মিথ্যা প্রলোভন

দেখিয়ে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে জোর পুর্বক

ধর্ষন করে। এদিকে শিক্ষক বিনয়ের বড়

ভাই দিনেশ চন্দ্র তার বিয়ে অনত্র ঠিক

করলে তা জানতে পারে মুক্তা। এ বিষয়ে

বিনয়ের সাথে মুক্তা কথা বললে বিনয় ক্ষিপ্ত

হয়ে চড়-থাপ্পর মারে। তার এহেন নির্যাতন

সহ্য করতে না পেরে মুক্তা বাধ্য হয়ে

বিনয়ের বাড়িতে যায়। বাড়িতেও চলে তার

উপর নির্মম নির্যাতন। বাড়িতে বিনয়ের

বড় ভাই ও বৌদিসহ সকলে মিলে তার

উপর অমানুষিক নির্যাতন চালায়। বিষয়টি

মিমাংসার জন্য দীর্ঘ সময় ক্ষেপনের পর

সর্বশেষ গত ৮ এপ্রিল বসার সিদ্ধান্ত হলেও

ছেলে পক্ষ উপস্থিত না হওয়ায় বৈঠক

হয়নি। ফলে প্রেমিকা মুক্তা গত মঙ্গলবার

থেকে প্রেমিক শিক্ষক বিনয় চন্দ্রের বাড়িতে

অবস্থান নিয়ে অনশন শুরু করে। গতকাল

দুপুরে পুলিশ মুক্তাকে উদ্ধার করে মামলা

দায়ের করে।