শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

অসহায় মনোয়ারা বেগম তার শেষ সম্বল বাড়িটি রার জন্য প্রশাসনের দারে দারে ঘুরছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মনোয়ারা বেগম ৩৩ বছর বসবাস করার পরেও ভূয়া ওয়ারিশ সেজে মর্জিনা বেগম লোকজন নিয়ে জোরপূর্বক তার শেষ সম্বল বসত বাড়িটি জোরপূর্বক দখল ও প্রেণে মেরে ফেলার হুমকি প্রদর্শন করাতে মনোয়ারা বেগম এখন মানবাধিকার সংস্থাসহ প্রশাসনের দারে দারে বিচার পাওয়ার আশায় ঘুরে বেড়াচ্ছে।

মানবাধিকার সংগঠনে দেয়া আবেদন সূত্রে যানা যায়, উপশহর এলাকার হাউজিং এষ্টেটের ৫নং ব্লক ও ২৯ নং প্লটের ৪ শতক জমির উপর বাড়ি ঘর নির্মাণ করে পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছে গত ৩০ বছর ধরে। তিনি নিজ নামে পৌর হোল্ডিং টেক্স, বিদ্যুৎ সংযোগসহ যাবতীয় বৈধ কাগজপত্রের মাধ্যমে বসবাস করে আসছেন। হাউজিং এষ্টেটের বরাদ্দ প্রক্রীয়া বন্ধ থাকার কারণে তিনি বরাদ্দ পত্র পাননি। হঠাৎ কদিনধরে ভূয়া ওয়ারিস সেজে শহরের পাহাড়পুর মহল্লার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের স্ত্রী মর্জিনা বেগম লোকজন নিয়ে উক্ত জায়গা দখল করতে আসে এবং জরপূর্বক প্রাচীর দিতে গেলে মনোয়ারা বেগম ও তার মেয়ে মুক্তা পারভীন বাধা দিলে মর্জিনা বেগম ও তার লোকজন প্তি হয়ে ধারালো অস্ত্র দেখিয়ে হুমকি ধামকি প্রদান করতে থাকে। বসতবাটি ও প্রাণ রা করার জন্য মনোয়ারা বেগম সিনিয়র সহকারী জজ আদালোতে মামলা দায়ের করেন। যার নং-৪২/২০১৫অন্য। নিরাপত্তার জন্য তিনি কোতয়ালী থানায় একটি জিডিও দায়ের করেন। বিচারের জন্য তিনি জাতীয় সংসদের হুইপ, পুলিশ সুপার সহ প্রশাসনের বিভিন্ন জায়গায় আবেদন করেছেন।

 

 

Spread the love