মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৪ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

অস্ট্রেলিয়ায় প্রবাসী ভারতীয় নারী প্রযুক্তি কর্মকর্তা খুন

অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে মারাত্মক ছুরিকাঘাতে ভারতীয় এক নারী নিহত হয়েছেন। গত শনিবার স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৯টার দিকে কাজ শেষে পার্কের মধ্যদিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। এ সময় ফোনে ভারতে থাকা স্বামীর সঙ্গে কথা বলছিলেন। তখন তাকে মারাত্মকভাবে জখম করা হয়। গতকাল রবিবার ডেইলি টেলিগ্রাফ পত্রিকা এ খবর জানায়। খবরে প্রকাশ, গত শনিবার স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৯টার দিকে তথ্য প্রযুক্তি কর্মকর্তা প্রভা অরুণ কুমার (৪১) নামের ওই নারী পরমাত্মা পার্কের মধ্যদিয়ে বাসায় ফিরছিলেন। হাঁটতে হাঁটতে স্বামীর সঙ্গে ফোনে কথাও বলছিলেন। আকস্মিক হামলার শিকার হয়ে তিনি স্বামীকে বলেন, আমাকে ছুরি মারা হচ্ছে, ডার্লিং। কিন্তু স্বামীর পক্ষে এতোদূর থেকে কিছু করা সম্ভব ছিলনা।
পরে একজন পথচারী তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। কিন্তু ডাক্তারদের আর কিছুই করার ছিলনা। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তিনি মারা যান। বাড়ি থেকে মাত্র ৩০০ মিটার দূরে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ সুপারিনডেনট্যান্ট ওয়াইনে কক্স বলেন, এটি একটি ভয়াবহ হামলা যা কল্পনাকেও হার মানায়। প্রভার স্বামী ও তার নয় বছরের কন্যা সন্তান নিয়ে ভারতে বসবাস করতেন। এ ঘটনার পর তিনি সন্তান নিয়ে অস্ট্রেলিয়া আসেন।
প্রভার সঙ্গে একই ফ্ল্যাটে থাকা সারদা জানান, তিনি তাকে রাতে এ পার্কের মধ্যদিয়ে আসতে প্রায়ই নিষেধ করতেন। তিনি বলেন, আমি তাকে প্রায়ই বলেছি জায়গাটা মোটেও ভালো নয়। কারণ হাঁটার সময়ে এখানে লোকজন থামিয়ে টাকা চায়। তিনি বলেন, আমি বুঝতে পারছি না তার স্বামীকে আমি কিভাবে সান্ত¦না দেব। তাদের মধ্যে খুব সুন্দর সম্পর্ক ছিলো। তাদের একটি চমৎকার পরিবার ছিল। প্রভা প্রতিদিনই কাজ শেষে বাড়ি ফেরার সময়ে তার স্বামীর সঙ্গে কথা বলতো। পুলিশ ঘটনা তদন্তে একটি টাস্কফোর্স গঠন করেছে। তবে এ পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।
প্রসঙ্গত অস্ট্রেলিয়ায় ২০১০ সালের পর থেকে ভারতীয় শিক্ষার্থীদের ওপর সহিংস হামলা বেড়েছে। বিশেষ করে মেলবোর্নে রেস্তোরাঁ কর্মী ২১ বছরের পাঞ্জাবী তরুণ নীতিন গার্গকে খুনের কারণে দু’দেশের সম্পর্কে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। তবে ২০১৪ সালে অস্ট্রেলিয়া সফরকালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দু’দেশের সম্পর্ককে উষ্ণ এবং স্বাভাবিক বলে বর্ণনা করেন।

Spread the love