বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আগামীকাল শনিবার চন্দ্রগ্রহণ

আগামীকাল শনিবার আংশিক চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে।  বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টা ১২ মিনিটে চাঁদ দিগন্তের উপরে ওঠার পর থেকে শুরু হয়ে সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মিনিটে আংশিক গ্রহণ এবং রাত ৮টা ৫৯ মিনিটে চন্দ্রগ্রহণের উপচ্ছায়া পর্যায় শেষ হবে। বাংলাদেশে আংশিক চন্দ্রগ্রহণ সংঘটিত হলেও প্রশান্ত মহাসাগর তীরবর্তী অঞ্চল, আলাস্কা ও হাওয়াই থেকে পূর্ণচন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে।

পরবর্তী পূর্ণচন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে ২০১৮ সালের ২৭ জুলাই। আজ শুক্রবার অনুসন্ধিৎসু চক্র বিজ্ঞান সংগঠন গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করে।

জানা যায়, চন্দ্রগ্রহণের সময় যখন সূর্য ও চাঁদের মাঝখানে পৃথিবী একই সরলরেখায় চলে আসে। এ সময় পৃথিবীর ছায়া চাঁদের উপর পড়ে। ফলে তখন মনে হয় চাঁদ ধীরে ধীরে ঢেকে যাচ্ছে। চন্দ্রগ্রহণ প্রায় ঘণ্টাকালীন স্থায়ী হয়। পৃথিবীর ছায়া অতিক্রম করতে চাঁদের ঘণ্টাখানেক সময় লেগে যায়।

অনুসন্ধিৎসু চক্রের জ্যোতির্বিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি মো. শাহজাহান মৃধা বলেন, সূর্যগ্রহণ খালি চোখে দেখা অত্যন্ত ক্ষতিকর হলেও চন্দ্রগ্রহণ খালি চোখে দেখা ক্ষতিকর নয়। চন্দ্রগ্রহণ দেখতে বাইনোকুলার বা টেলিস্কোপ আবশ্যক নয়। তবে পরিস্কার অর্থাৎ ভালোভাবে দেখতে সেগুলোর ব্যবহার করা যেতে পারে। ছবি তোলার জন্য যেকোনো জুম লেন্সসহ ক্যামেরাই যথেষ্ট। তিনি বলেন, চন্দ্রগ্রহণ পর্যবেক্ষণের জন্য অনুসন্ধিৎসু চক্র নানা প্রস্তুতি নিয়েছে। কেন্দ্রীয় ও বৈজ্ঞানিক পর্যবেক্ষণ ক্যাম্পটি অনুষ্ঠিত হবে ঢাকার আফতাবনগর প্রকল্পের উত্তরপ্রান্তে।

মেঘমুক্ত আকাশ থাকা সাপেক্ষে ক্যাম্প শুরু সন্ধ্যা ৬টা ১২মিনিট থেকে। গ্রহণ শেষ হওয়া পর্যন্ত পর্যবেক্ষণ ক্যাম্প সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

এছাড়া অনুসন্ধিৎসু চক্র ও এস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটি অব রুয়েট যৌথভাবে রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় খেলার মাঠে চার ইঞ্চি মাকসুতভ টেলিস্কোপের মাধ্যমে চন্দ্রগ্রহণ পর্যবেক্ষণ ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানান তিনি।

Spread the love