রবিবার ১৪ অগাস্ট ২০২২ ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আঠারো দিন ধরে খোঁজ নেই মাদ্রাসা ছাত্র খোকনের

মো. জাকির হেসেন, রংপুর ব্যুরো চীফ : আঠারো দিন ধরে খোঁজ মেলেনি দশ বছরের শিশু খোকন মিয়ার। নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জ উপজেলার বাজেডুমরিয়া পূর্বধাইজান পাড়া এতিমখানা মাদ্রাসার ছাত্র সে। এদিকে একটি প্রভাবশালী চক্র খোকনকে ফিরিয়ে দিতে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছে। এ ঘটনায় থানায় জিডি হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) উপজেলার রনচন্ডি ইউনিয়নের বাফলা হাজিপাড়া গ্রামের নিখোঁজ খোকসের পিতা আসিক আলী সাংবাদিকদের জানায়, তার ছেলে বাজেডুমরিয়া পূর্ব ধাইজান পাড়া এতিমখানা মাদ্রাসার নূরানী বিভাগে পড়ালেখা করত। এ জন্য থাকে মাদ্রাসা এলাকার সাইদার রহমানের ছেলে শাহাদাৎ হোসেনের বাড়িতে লজিং রাখে। ঈদুল-আযাহার ছুটিতে খোকন নিজ বাড়িতে যায়। গত ২ অক্টোবর দুপুরে লজিং বাড়ির মালিক শাহাদাৎ হোসেন খোকনদের বাড়িতে যায়। সেখানে রাত্রীযাপন শেষে পরের দিন তিনি খোকন কে সাথে নিয়ে নিজবাড়িতে ফিরে আসার সময় খোকন নিখোঁজ হয়। খোকনের বাবা আসিক আলী অভিযোগ আমার ছেলে নিখোঁজ হওয়ার দু’দিন পর শাহাদাৎ বিষয়টি তাদের জানায়।

এ ঘটনায় খোকনের পিতা কিশোরীগঞ্জ থানায় গেলে পুলিশ একটি জিডি রেকর্ড করে। জিডির সুত্র ধরে পুলিশ গত ৯ অক্টোবর উপজেলার সোনাকুড়ি ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের শরিফুল ইসলামের ছেলে মহববত আলী (২০) রনচন্ডি মাবুর ষ্ট্যান্ড থেকে হটালু মামুদের ছেলে আল আমিন (১৬) ও একই গ্রামের বাবু মিয়ার ছেলে লাল চাঁদ মিয়া (১৮) কে আটক করে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দেয় পুলিশ।

খোকনের পিতা আরো অভিযোগ করে জানায়, তার ছেলে খোকনকে ফিরিয়ে দিতে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ চেয়েছে ওই গ্রামের প্রভাবশালী মোহাম্মদ আলীর ছেলে রায়হান আলী। বিষয়টি পুলিশ কে জানানোর পরও কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। অথচ রায়হান আলী খোকনকে মুক্তিপনের দুই লাখ টাকা একের পর এক দাবি করে যাচ্ছে।

এ ব্যাপারে কিশোীরগঞ্জ থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান জানায়, খোকনের বিষয়ে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে(জি ডি নং ৩২৬)। খোকনকে উদ্ধারের জন্য সব ধরনের চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email