রবিবার ২১ এপ্রিল ২০২৪ ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আদিবাসী যুবক হত্যাকারীদের শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন

দিনাজপুর প্রতিনিধি : সান্তাল স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (সাসু)’র রাজশাহী মহানগর শাখার নেতা তানোর উপজেলার আদিবাসী যুবক বাবলু হেম্ব্রম এর হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শান্তির দাবীতে দিনাজপুরে ৬টি সংগঠন মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে।

 

বুধবার বেলা ১১টায় দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

 

 

সান্তাল স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (সাসু), উরাঁও যুব সংঘ, আদিবাসী ছাত্র সংগঠন (হাবিপ্রবি), বাংলাদেশ ওরাঁও স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন (বসা), আদিবাসী ছাত্র পরিষদ এবং নর্দান আদিবাসী ছাত্র ঐক্য জোট সান্তাল স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (সাসু)’র রাজশাহী মহানগর শাখার নেতা তানোর উপজেলার আদিবাসী যুবক বাবলু হেমব্রম এর হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে।

 

নর্দান আদিবাসী ছাত্র ঐক্য জোট দিনাজপুরের সভাপতি জন মুরমু এর সভাপতিত্বে সান্তাল স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (সাসু) দিনাজপুর শাখার সভাপতি রনি হেম্ব্রম এর সঞ্চালনায় মানববন্ধণ কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর সদর আদিবাসী সমাজ উন্নয়ন সমিতির চেয়ারম্যান রুবেন মুরমু, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ দিনাজপুর শাখার সাধারণ সম্পাদক রতন মার্ডি, সান্তাল স্টুডেন্টস্ (সাসু) দিনাজপুর জেলা শাখার সদস্য শিমন মার্ডী, উরাঁও যুব সংঘ দিনাজপুর এর সহ-সভাপতি শিউলী বাড়া, আদিবাসী ছাত্র সংগঠন হাবিপ্রবির সভাপতি স্বপন খালকো, নর্দান আদিবাসী ঐক্য জোট দিনাজপুর সদর এর সাধারণ সম্পাদক সানি টুডু, নর্দান আদিবাসী ঐক্যজোট দিনাজপুর সদর এর সাধারণ সম্পাদক পল্লব কিস্কু, বাংলাদেশ ওরাঁও স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন দিনাজপুর এর ক্রীড়া সম্পাদক শুভ কুজুর, আদিবাসী ছাত্র সংগঠন হাবিপ্রবির সাধারণ সম্পাদক পলাশ কিস্কু মারকুস, সান্তাল স্টুডেন্টস্ (সাসু) দিনাজপুর জেলা শাখার সহ-সভাপতি সুজন মুরমু প্রমুখ।

 

এ সময় বক্তারা বলেন, গত ৯ জানুয়ারী মধ্য রাতে রাজশাহী তানোর উপজেলার ময়েনপুর গ্রামের আদিবাসী সান্তাল যুবক রাজশাহী কলেজের মাষ্টারর্স শেষ বর্ষের মেধাবী শিক্ষার্থী ও সান্তাল স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (সাসু) রাজশাহী মহানগর শাখার নেতা বাবলু হেম্ব্রম দূর্বত্ত, ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসীদের হাতে নিজ বাড়িতে নিহত হয়েছেন। হত্যাকারী সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্রের মাধ্যমে বাবলু হেম্ব্রমকে ঘুমন্ত অবস্থায় মাথা থেতলিয়ে ও গলাকেটে হত্যা করে। নিহত বাবলু হেম্ব্রম তার পিতা-মাতার একমাত্র সন্তান। তাদের পরিবারের প্রায় ২০ বিঘার মত আবাদি জমি আছে। এলাকায় সে অত্যন্ত ভদ্র, নম্র ও বিনয়ী ব্যক্তি হিসেবেই পরিচিত ছিল। পরিবার ও বন্ধুমহলের অভিযোগ মাস পূর্বে হত্যাকারী সন্ত্রাসীরা বাবলু হেম্ব্রমের বাড়ীতে আনুমানিক ২ লক্ষ টাকা চাঁদা চেয়ে একটি বেনামি চিঠি পাঠায় ও ২০ ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখের মধ্যে তা পরিশোধ করতে বলে। ধারনা করা হচ্ছে, তার হত্যাকান্ডের সাথে এ ঘটনার যোগসূত্র থাকতেও পারে। ঘটনার ৯দিন পরেও পুলিশ জড়িত কাউকে গ্রেফতার করেনি। এ নিয়ে এলাকায় আদিবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

Spread the love