শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আয়ারল্যান্ডকে ২০১ রানে হারাল দক্ষিণ আফ্রিকা

বিশ্বকাপ ক্রিকেটে আয়ারল্যান্ডকে ২০১ রানের বড় ব্যবধানে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৪ উইকেটে ৪১১ রানের বিশাল সংগ্রহ প্রোটিয়ারা। যা বিশ্বকাপের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর। জবাবে ব্যাট করতে নেমে, ২১০ রানে থামে আইরিশদের ইনিংস।
ইনিংসের ৩য় ওভার থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় আয়ারল্যান্ড। দলীয় ১৭ রানের মাথায় পল স্টার্লিংকে ফিরিয়ে ধ্বসের শুরু করেন শততম ম্যাচ খেলতে নামা ডেল স্টেইন। এরপর তার সঙ্গে যোগ দেন কাইল এবোট। পরপর তুলে নেন অধিনায়ক উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড, নেইল ও ব্রায়েন এবং গ্যারি উইলসনকে। মাঝে এড জয়েসকে ফিরিয়ে দেন স্টেইন।
৪৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বিপর্যস্ত আয়ারল্যান্ডকে শতক পার করান কেভিন ও ব্রায়েন এবং আন্দ্রে বালবিরনি। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে দুজনে মিলে যোগ করেন ৮১ রান। ১২৯ রানের মাথায় মরণে মরকেলের প্রথম শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন ৫৮ রান করা বালবিরনি। এর আগে প্রথমে ব্যাট করে ৫০ ওভারে ৪ উইকেটে ৪১২ রানের বিশ্বকাপ রেকর্ড স্কোর দাড় করায় দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রোটিয়াদের হয়ে হাশিম আমলা ১৫৯ এবং ফ্যাপ ডু প্লেসিস ১০৯ রানের দুটি সেঞ্চুরি ইনিংস খেলেন।
শুরুতেই ওপেনার কুইন্টন ডি ককের উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপর ডু প্লেসির সঙ্গে জুটি বাধেন হাশিম আমলা। বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার ২য় উইকেটে সর্বোচ্চ ২৪৭ রানের জুটি গড়েন এই দু’জন। হাশিম আমলা ২০তম এবং ডু প্লেসি তুলে নেন ক্যারিয়ারের ৪র্থ সেঞ্চুরি। ডু প্লেসি ১০৯ রান করে আউট হলেও, আমলা আউট হন ক্যারিয়ার সেরা ১৫৯ রান করে। এরপর শেষ দিকে ডেভিড মিলার ও রাইলি রুশোর ৫১ বলে ১১০ রানের জুটিতে, টানা ২য় ম্যাচে ৪০০ এর বেশী দলীয় স্কোর পায় প্রোটিয়ারা। রুশো ৬১ ও মিলার ৪৬ রানে অপরাজিত থাকেন।
পাহাড়সম টার্গেট তাড়া করতে নেমে, প্রোটিয়া পেসারদের বোলিং তোপে পড়ে আইরিশরা। দলীয় ৫০ রানেই ৫ হারিয়েছে তারা। শেষে দিকে বালর্বিরিনের ৫৮ ও কেভিন ও ব্রাইনের ৪৮ রান হারে ব্যবধান কমিয়েছে মাত্র। কাইল অ্যাবোর্ট নেন ৪ উইকেট। ম্যাচ সেরা হয়েছেন হাশিম আমলা।
দক্ষিণ আফ্রিকার ৪১২ রানের পাহাড় ডিঙাতে গিয়ে আয়ারল্যান্ড কতদূর যায়, সেটাই ছিল অপেক্ষার। শেষপর্যন্ত ৪৫ ওভারে অলআউট হওয়ার আগে আইরিশদের সংগ্রহ ২১০ রান। প্রোটিয়াদের জয় ২০১ রানের বড় ব্যবধানে।

Spread the love