রবিবার ২ অক্টোবর ২০২২ ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেইন সীমান্তে নজরদারি করবে নেটো বিমান

Natoডেস্ক নিউজ: ইউক্রেইন সঙ্কটের ওপর নজর রাখতে পোল্যান্ড এবং রুমানিয়ায় অ্যাওয়াকস অনুসন্ধানী বিমান মোতায়েন করবে নেটো। সোমবারই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন নেটো জোটের মুখপাত্র। তিনি আরো জানান, নেটোর শীর্ষ সামরিক প্রধান যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনীর জনোরেল ফিলিপ ব্রিডলভ এর সুপারিশের পর নেটো কূটনীতিকরা এ পদক্ষেপের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। নেটো মিত্র দেশগুলোর সীমানার ভেতরে থেকেই নজরদারি চালাবে সব অ্যাওয়াকস বিমান। পরিস্থিতি সম্পর্কে জোটের দেশগুলোর সচেতনতা বাড়ানোই এর লক্ষ্য। জার্মানি এবং যুক্তরাজ্যের নেটো বিমানঘাঁটি থেকে উড়ে যাবে এ নজরদারি বিমানগুলো। রাশিয়ায় যোগদান প্রশ্নে আগামী রোববার ক্রিমিয়ায় গণভোটের আগে রাশিয়া সেখানে নিয়ন্ত্রণ আরো পাকাপোক্ত করায় নেটো এ পদক্ষেপ নিল। ক্রিমিয়ার রাশিয়ায় যোগ দেয়ার পরিকল্পনাকে ইউক্রেইন এবং পশ্চিমা বিশ্ব অবৈধ আখ্যা দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র এ সপ্তাহে পোল্যান্ডে ১২ টি এফ-১৬ জঙ্গি বিমান এবং পর্যবেক্ষণ কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষণে পাঠানোর ঘোষণা দেয়ার এক সপ্তাহ পর নেটো এ নজরদারি বিমান পাঠাচ্ছে। এতে করে ইউক্রেইন সঙ্কট নজরে রাখতে নেটোর প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকার ব্যাপারে নতুন করে আশ্বসত্ম হবে পূর্ব ইউরোপের দেশগুলো। ২০১৩ সালের নভেম্বরে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে একটি বাণিজ্য চুক্তিতে না গিয়ে রাশিয়ার কাছ থেকে দেড় হাজার কোটি ডলার ঋণ নেয়ার পর ইউক্রেইনে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয়। পরে পার্লামেন্টে বিক্ষোভ বিরোধী বিভিন্ন আইন পাসকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভ সহিংস রূপ পায়। সম্প্রতি রাশিয়ার কাছ থেকে ইউক্রেইন আরো দুইশ কোটি ডলার ঋণ নেয়ার পর নতুন করে বিক্ষোভ শুরু হয়। সহিংসতায় পুলিশ ও বিক্ষোভকারীসহ নিহত হয় অমত্মত ৭৭ জন। আন্দোলন-বিক্ষোভের মুখে গতমাসে ক্ষমতাচ্যুত হন ইউক্রেইনের রুশপন্থি প্রেসিডেন্ট ভিক্টর ইয়ানুকোভিচ। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এর নিন্দা জানিয়ে বলেন, মস্কোর দৃষ্টিতে ইয়ানুকোভিচ এখনও দেশটির বৈধ প্রেসিডেন্ট। এরপর ইউক্রেইনের স্বায়ত্বশাসিক অঞ্চল ক্রিমিয়ায় সেনা পাঠায় রাশিয়া। ইউক্রেইন সরকারের পাশাপাশি পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়ার এ পদক্ষেপের বিরোধিতা করলেও ক্রিমিয়ার জনগণ এতে সন্তোষ প্রকাশ করে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email