মঙ্গলবার ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২৪শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

উষ্ণ অভ্যর্থনায় সিক্ত সোহাগী ও স্বপ্না

রবিউল এহ্সান রিপন, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: নেপালকে হারিয়ে প্রথমবারের মত সাফ নারী চাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল। নারী ফুটবল দলের এ বিজয়কে সাধুবাদ জানিয়ে ফুটবল দলের সদস্য স্বপ্না রানী ও সোহাগী কিসকুকে গণসংবর্ধনা দিয়েছেন জেলা প্রশাসন ঠাকুরগাঁও।  
শনিবার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সামনে এ গণসংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। গণসংবর্ধনায় জেলা প্রশাসন, জেলা ক্রীড়া সংস্থাসহ জেলার বিভিন্ন ক্রীড়া,সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনগুলো তাদের উষ্ণ অভ্যর্থনা প্রদান করেন৷ এছাড়াও জেলা প্রশানের পক্ষ থেকে ৫০ হাজার টাকা ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে ২৫ হাজার টাকা  তাদের দেওয়া হয়৷ 
সকালে নিজ বাড়ি থেকে ঢাক ঢোলের সুরে গাড়ি বহর করে তাদেরকে নিয়ে আসা হয় গণসংবর্ধনায়। অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঠাকুরগাঁও -১ আসনের সাংসদ রমেশ চন্দ্র সেন৷ আরো বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাদেক কুরাইশী, ঠাকুরগাঁও পৌরসভার মেয়র আন্জুমান আরা বন্যা,জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাসহুদুর রহমান বাবু প্রমুখ। 
উষ্ণ অভ্যর্থনা ও গণমানুষের এমন ভালবাসা পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে স্বপ্না ও সোহাগী বলেন, এমন একটি দিন আমাদের জীবনে আসবে আমরা কখনো কল্পনা করতে পারিনি৷ এত বেশী ভালবাসা পেয়েছি আর পাচ্ছি তা বলার মত নয়৷ আমরা ঠাকুরগাঁও বাসীর কাছে চিরকৃতজ্ঞ। বিশেষ করে কৃতজ্ঞতা জানায় আমাদের তাজুল স্যারের প্রতি। যিনি আমাদের এখানে আসতে সাহায্য করেছেন। তিনি এমন উদ্যোগ গ্রহণ না করলে হয়তো আজ এত ভালবাসা পেতামনা। সেই সাথে যারা আমাদের কোচ ছিলেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। আমরা আশা রাখছি এ সংবর্ধনা আমাদের অনুপ্রাণিত করবে। আমরা একদিন বিশ্বকাপ খেলব ইনশাআল্লাহ৷ 
গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি  সাংসদ রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, নারী ফুটবল দল চমক দেখিয়েছে। তার মধ্যে আমাদের জেলার দুইজন নারী ফুটবল দলের সদস্য। আমরা তাদের জন্য গর্বিত। আমরা মনে করছি তাদের এ সংবর্ধনার আয়োজনের মধ্য দিয়ে তারা আরো সামনে এগিয়ে যাবে। সেই সাথে তারা যাতে করে আরো সামনে এগিয়ে যায় তাদের সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 
জেলার খেলোয়াড় ও তাদের পরিবারের পাশে থাকার দৃঢ় আশ্বাস জানিয়ে জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান বলেন, আমাদের জেলার মেয়েরা দুর্দান্ত ফুটবল খেলে থাকেন। তাদের খেলা আমি দেখেছি। তারা ইতিমধ্যে ভালো করছে আগামীতে আরো অনেক ভালো করবে আমরা আশা করছি। তাদের খেলাধুলা যাতে কোন কারনে থেমে না যায় সেজন্য জেলা প্রশাসন সবসময় তাদের পাশে থাকবে।