শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কণ্ঠশিল্পী কনকচাঁপার ৫২তম জন্মদিন আজ

জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী কনকচাঁপার  ৫২ তম জন্মদিন আজ। ‘যে প্রেম স্বর্গ থেকে এসে জীবনে অমর হয়ে রয়…’ প্রয়াত খালিদ হাসান মিলুর সঙ্গে গাওয়া এ গানটিতে মিষ্টি সুরের নারী কন্ঠটি দিয়েছিলেন ‘জননী বঙ্গপ্রভা’ সম্মাননায় ভূষিত কণ্ঠশিল্পী কনকচাঁপা। এই গানটির মাধ্যমেই তিনি জয় করে নিয়েছিলেন কোটি ভক্তের হৃদয়।

বর্তমানে দেশের খ্যাতিমান এই কণ্ঠশিল্পী যুক্তরাষ্ট্রে আছেন। সেখানে খালাতো ভাই মোর্শেদ টিটোর বাসায় আছেন তিনি।

জন্মদিনের আয়োজন প্রসঙ্গে গণমাধ্যমকে কনকচাঁপা জানান, ‘জন্মদিনে তারা (পরিবার) খোলা মাঠে পিকনিকের মতো একটা আয়োজন করেছে। এসব দেখে সত্যি সত্যিই লজ্জা পাই। জন্মদিনে মানুষের কাছ থেকে যে ভালোবাসা পাই, সেটাই অনেক মূল্যবান।’

১৯৬৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর জন্ম নেয়া এই কন্ঠশিল্পী চলচ্চিত্র, আধুনিক গান, নজরুল সঙ্গীত, লোকগীতি সহ প্রায় সবধরনের গানে সমান পারদর্শী। ১৯৭৮ সালে সর্বপ্রথম তিনি টিভিতে পারফর্ম করেন। একই বছর তিনি শিশুশিল্পী হিসেবে ‘নতুন কুঁড়ি’র চ্যাম্পিয়ন হয়। তিনি টানা ৩ বছর ‘জাতীয় শিশু প্রতিযোগিতা’র চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেন।

৩৬ বছর ধরে সংগীতাঙ্গনে সমানতালে কাজ করে যাওয়া কনকচাঁপা এ পর্যন্ত চলচ্চিত্রের তিন হাজারেরও বেশি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। তিনি প্লে-ব্যাক সিঙ্গার হিসেবে নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন। প্রকাশিত হয়েছে ৩৫টি একক গানের অ্যালবাম। চলচ্চিত্রের গান নিয়ে তার সর্বশেষ প্রকাশিত অ্যালবাম ‘আবার এসেছি ফিরে’। বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবনুরের প্রায় প্রতিটি গানেই শোনা যায় কনক চাঁপার কণ্ঠ। বাংলা সিনেমার গানে কনকচাঁপা একটি অধ্যায়ের নাম।

নারী শ্রেষ্ঠ প্লেব্যাক কন্ঠশিল্পী হিসেবে রুনা লায়লা ও সাবিনা ইয়াসমিনের পরে তিনিই তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়া আরো পেয়েছেন- বাচসাস চলচ্চিত্র পুরস্কার, দর্শক ফোরাম পুরস্কার ১৯৯৮ এবং ১৯৯৯, প্রযোজক সমিতি পুরস্কার ১৯৯৫, প্রথম আলো-মেরিল পাঠক জরিপ (৪ বার)।

প্রায় ২৫ বছর ধরে সামাজিক বিভিন্ন কাজে নিজেকে জড়িয়ে রেখেছেন কনকচাঁপা। তিনি একটি বৃদ্ধাশ্রমের সঙ্গে জড়িত আছেন। এই বৃদ্ধাশ্রমে শুধু অসহায় নারীরা থাকেন। এই কাজগুলো বড় পরিসরে করার জন্য রাজনীতিতে নাম লিখিয়েছিলেন। একাদশ সংসদ নির্বাচনে সিরাজগঞ্জ-১ কাজিপুর আসনের বিএনপি মনোনীত সাবেক প্রার্থী তিনি। কনকচাঁপার উদ্যোগে অনলাইন ইসকুল ‘আমাদের খেলাঘর ইসকুল’ প্রতিষ্ঠিত হয়। শুধু মানুষের জন্যই নয় প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষাতেও তার এ দল কাজ করে।

এছাড়াও লেখক হিসেবেও কনকচাঁপার সুখ্যাতি রয়েছে। তিনি ‘স্থবির যাযাবর’ নামে একটি অটোবায়োগ্রাফি লিখেছেন, ২০১১ সালের অমর একুশে বইমেলায় এটি প্রকাশিত হয়। এছাড়াও ২০১২ সালে মুখোমুখি যুদ্ধ, মেঘের ডানায় চড়ে (২০১৬), কাঁটা ঘুড়ি (২০১৮), সেই পথে যাও (২০১৯), কাঁটা ঘুড়ি-২ (২০১৯) বইগুলো প্রকাশিত হয়।

ব্যক্তিজীবনে তিনি ১৯৮৪ সালে মিউজিক ডিরেক্টর ও কম্পোজার মইনুল ইসলাম খানের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email