বৃহস্পতিবার ৬ অক্টোবর ২০২২ ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কাদের মোল্লার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর স্থগিতের আদেশ

56893কারা কর্তৃপক্ষ সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করার পর আব্দুল কাদের মোল্লার আইনজীবীদের আবেদনে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর স্থগিতের আদেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার বিচারপতি সৈয়দ মাহমদু হোসেন। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক বলেন, মৃত্যুদণ্ড কার্যকর বুধবার সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত স্থগিত রাখার আদেশ পেয়েছেন তারা। সন্ধ্যায় কারা কর্তৃপক্ষ মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের প্রস্তুতি নেয়ার পর কাদের মোল্লার আইনজীবীরা তা স্থগিতের আবেদন নিয়ে কাকরাইলে চেম্বার বিচারপতি বিচারপতির বাড়িতে যান।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কারা কর্তৃপক্ষ মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের প্রস্তুতি নেয়ার পর কাদের মোল্লার আইনজীবীরা তা স্থগিতের আবেদন নিয়ে কাকরাইলে চেম্বার বিচারপতি বিচারপতির বাড়িতে যান। এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে সুপ্রিম কোর্টের নিবন্ধক একেএম শামসুল ইসলাম বলেন, “স্থগিত একটি আদেশ এসেছে । আমরা কারাগারে যোগাযোগ করছি। এর মধ্যে রাত পৌনে ১১টার দিকে কাদের মোল্লার আইনজীবী ফরিদ উদ্দিন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে আদেশের একটি অনুলিপি নিয়ে যান। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, চেম্বার জজ স্থগিতাদেশ দিয়েছেন, আমরা তা কারা কর্তৃপক্ষকে জানাতে এসেছি।

তার আগ পর্যন্ত মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের সব প্রস্ততি নিয়ে বসেছিল কারা কর্তৃপক্ষ। কাদের মোল্লার আইনজীবী ঢোকার কয়েক মিনিট আগেও সিভিল সার্জনকে কারাগারে ঢুকতে দেখা যায়। এর আগে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু জানিয়েছিলেন, মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টার পর কার্যকর হবে। সন্ধ্যায় আইন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলামের বাসভবনে তিনি সাংবাদিকদের একথা জানান।

কামরুল আরও বলেন, দুই জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে কাদের মোল্লার কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে তিনি প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না। কিন্তু তিনি তা করবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন। এ অবস্থায় তার বিরুদ্ধে দেয়া ফাঁসির রায় কার্যকর করার ক্ষেত্রে কোনো বাঁধা আর নেই। সিনিয়র কারা তত্ত্বাবধায়ক (জেল সুপার) ফরমান আলী জানিয়েছেন, মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে ফাঁসি কার্যকর করা হবে।

এর আগে স্বারাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ফাঁসি সংক্রান্ত সরকারের একটি সম্মতিপত্র বিকেলে কারাকর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছানো হয়েছে। তারপরই কারাকর্তৃপক্ষ কাদের মোল্লার পরিবারকে দেখা করার জন্য কারাগারে যেতে বলেন। কারা কর্তৃপক্ষের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে কাদের মোল্লার সঙ্গে শেষ দেখা করেছেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা। কাদের মোল্লার সঙ্গে দেখা করতে তার পরিবারের সদস্যরা গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাতটা ৫৫ মিনিটে দুইটি মাইক্রোবাসে ভেতরে যান। রাত আটটা ৪৫ মিনিটে দিকে তারা কারাগার থেকে বের হয়ে যান।

প্রথমে কাদের মোল্লার স্ত্রী-মেয়েদের এবং পরে ছেলে ও অন্য আত্মীয়স্বজনকে বহন করা মাইক্রোবাস কারাগারের ভেতর থেকে বেরিয়ে যায়। পরিবারের আবেদন অনুযায়ী কারা কর্তৃপক্ষ ২৩ জনকেই কাদের মোল্লার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেয়।

এর আগে সকালে ফরমান আলী সাংবাদিকদের বলেন, ‘যেদিন ওয়ারেন্ট পেয়েছি, সেদিন থেকে সাত দিন কার্যকর হবে। ৮ তারিখ থেকে কাউন্ট ডাউন, সাত দিন। সরকারের আদেশ-নির্দেশের অপেক্ষায় আছি।’

তবে, কাদের মোল্লার আইনজীবী  ব্যারিস্টার আবদূর রাজ্জাক দাবি করেন, “জেলকোড অনুযায়ী মৃত্যু পরোয়ানা জারির পর ১৫ দিন পর্যন্ত সময় থাকে। ৮ তারিখে মৃত্যু পরোয়ানা ইস্যু হয়েছে, তাই ২৩ তারিখ পর্যন্ত সময় আছে। ২১ বা ২২ তারিখে তার সঙ্গে আবার দেখা করে প্রাণভিক্ষার আবেদনের বিষয়ে তার মতামত জানা হবে।”

এক প্রশ্নের জবাবে কাদের মোল্লার আইনজীবী বলেন, তার মক্কেল মানসিকভাবে বিচলিত হননি। তিনি মনে করেন, রাজনৈতির কারণে তাকে ফাঁসি দেয়া হচ্ছে।

গত ৫ ডিসেম্বর প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ সংখ্যাগরিষ্ঠ মতামতে কাদের মোল্লাকে ফাঁসির দড়িতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডাদেশের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। এরপর আবদুল কাদের মোল্লাকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার-২ থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।

গত রোববার আবদুল কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে মৃত্যু পরোয়ানা জারি করে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২। একই দিন তা ঢাকা কেন্দ্রীয় কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়।

২০১০ সালের ১৩ জুলাই অন্য একটি মামলায় কাদের মোল্লাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ওই বছরের ১৪ অক্টোবর মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। তদন্ত শুরু হয় ২১ জুলাই। গত বছরের ২৮ মে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। ৩ জুলাই থেকে সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গত ৫ ফেব্র“য়ারি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে আনা ৬টি অভিযোগের মধ্যে ২টিতে তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ৩টিতে ১৫ বছর করে কারাদণ্ড দেন। – See more at: http://www.fairnews24.com/details.php?id=14601#sthash.mNDzkIKn.dpuf

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email