শনিবার ২ মার্চ ২০২৪ ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কামারুজ্জামানকে রায় পড়ে শোনানো হয়েছে

মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানকে রায় পড়ে শোনানো হয়েছে।

 

সিনিয়র জেল সুপার ফরমান আলী রায় পড়ে শোনান। এরপর আইজি (প্রিজন) ব্রি. জেনারেল এফতেখার উদ্দিনের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে তা জানান তিনি। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন জেলার নেছার আলী।

 

এর আগে পৌনে ৬টার দিকে ট্রাইব্যুনালের ডেপুটি রেজিস্ট্রার আবতাবুজ্জামানের নেতৃত্বে চার সদস্যেরে প্রতিনিধি দল রায়ের কপি কারাগারে পৌঁছান।

 

এর আগে কামারুজ্জামানের রিভিউ আবেদন খারিজের রায়ের কপি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল থেকে কারাগারে পৌঁছায় বিকেল ৫টা ৫৫ মিনিটে।

 

সুপ্রিম কোর্টের সহকারী রেজিস্ট্রার মেহেদী হাসান বিকেল ৪টা ৫০ মিনিটে ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার আবতাবুজ্জামানের কাছে রায়ের কপি হস্তান্তর করেন। ট্রাইব্যুনাল থেকে সাড়ে ৫টার দিকে রায়ের কপি কেন্দ্রীয় কারাগারের আইজি প্রিজন এবং ঢাকা জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে পাঠানো হয়।

 

বুধবারই প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাসহ চার বিচারপতি রায়ের কপিতে স্বাক্ষর করেন।

আইজি (প্রিজন) ব্রি. জেনারেল এফতেখার উদ্দিন জানান, ‘বিচারপতিদের সর্বশেষ স্বাক্ষর করা নীল কপি কারাগারে আসা মাত্রই তা কামারুজ্জামানকে পড়ে শোনানো হয়েছে। তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা না চাইলে নিয়ম অনুযায়ী তা প্রথমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অবহিত করা হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ফাঁসির যে সময় বেঁধে দেবে সেই অনুযায়ী ফাঁসির রায় কার্যকর করা হবে। তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কোনো ভাবেই সময় ক্ষেপণ করবে না বলে আগেই জানিয়েছেন।’

 

কামারুজ্জামানের ফাঁসি কার্যকর করার পর ডাক্তারি পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে লাশ সরাসরি সরকারি অ্যাম্বুলেন্সে করে শেরপুরের গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হবে। শেষ রাতের দিকে করা নিরাপত্তায় তার লাশ দাফন করা হবে।

Spread the love