বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কামারুজ্জামানের দাফন সম্পন্ন হয়েছে

যুদ্ধাপরাধী কামারুজ্জামানের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রোববার ভোর পাঁচটা ১০ মিনিটে তার গ্রামের বাড়ি শেরপুর সদর উপজেলার বাজিতখিলা ইউনিয়নের মুদীপাড়ায় দাফন করা হয়েছে তাকে।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে নিয়ে যাওয়ার পর রাত ৪টা ৪০ মিনিটে কামারুজ্জামানের মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তার বড় ভাই কফিল উদ্দিন লাশ গ্রহণ করেন।

পরে কড়া নিরাপত্তায় এতিমখানা মাঠে অনুষ্ঠিত হয় নামাজে জানাজা। নামাজে জানাজায় অংশ নেন স্বজন ও গ্রামের লোকজন। মাওলানা আবদুল হামিদ এতে ইমামতি করেন। সবশেষে শেষ ইচ্ছা অনুসারে তাকে দাফন করা হয় তার প্রতিষ্ঠিত এতিমখানার পাশেই।

মরদেহটি শেরপুরের প্রশাসনের সহযোগিতায় দাফন করা হয়। সেই সঙ্গে অ্যাম্বুলেন্সের সঙ্গে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ডেপুটি জেলার আখেরুল ইসলাম রাসেলও শেরপুর যান। র‌্যাব, পুলিশ, ঢাকা মহানগর পুলিশ, ঢাকা জেলা পুলিশ, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ, ঢাকা জেলা গোয়েন্দা পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ১০টি গাড়ি সঙ্গে ছিল। পুলিশ-র‌্যাবের গাড়ি ছাড়া আরো একটি অ্যাম্বুলেন্সও ছিল লাশের বহরে।

শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকেই কুমরি মুদিপাড়া গ্রামের তার প্রতিষ্ঠিত মাদরাসা ও এতিমখানার পাশেই কবর খোঁড়ার কাজ শুরু করা হয়। তবে শিলাবৃষ্টির কারণে কিছুটা বিলম্ব হয়। রাত ২টার পরে কবর খোঁড়ার কাজ শেষ হয়।

বাজিতখিলা বাজার ও আশপাশে পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি মোতায়েন করা হয়। আগে থেকেই ওই এলাকায় পুলিশ রেড এলার্ট জারি করে। স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মী ও বাসিন্দাদের ওই গ্রামে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি।

Spread the love