বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহের উদ্বোধন

রফিক প্লাবন, দিনাজপুর ॥- শিশুরাই আগামী দিনের ভবিষ্যত এমন মন্তব্য করে দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডাঃ অমলেন্দু বিশ্বাস বলেছেন, কৃমি নিয়ন্ত্রনসহ প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরিচর্যা সঠিক ভাবে পালন করলে শিশুদের পুষ্টিহীনতা দূর করে মেধাসম্পন্ন সুস্থ জাতি গঠন করা সম্ভব হবে। আর যা হবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর দেখা স্বপ্ন সোনার বাংলা গঠনে একটি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ।

২২ অক্টোবর শনিবার সকাল সাড়ে ৯ টায় দিনাজপুর সিভিল সার্জন এর আয়োজনে সদর উপজেলার কসবা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহ (২২-২৭) অক্টোবর ২০১৬ পালনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি একটি শিশুকে কৃমি নাশক ঔষুধ ঞধন: ঠবৎসড়ী (গবনবহফধুড়ষব ৫০০সম) খাওয়ান এবং কৃমি নিয়ন্ত্রন সপ্তাহের উদ্বোধন করেন। পরে বিদ্যালয়ের ১৫ জন ক্ষুদে ডাক্তার শিক্ষকদের সহায়তায় দায়িত্বের সহিত সকল শিশুকে এই কৃমি নাশক ঔষুধ খাওয়ায়।
.
সিভিল সাজর্ন ডাঃ অমলেন্দু বিশ্বাস আরো বলেন, কৃমি শরীরের সব জায়গায় ঘোরাফেরা করে। এতে করে দেহের বিভিন্ন রোগ দেখা দেয়। আর কৃমি শিশুর মেধার সঠিক বিকাশ ঘটাতে বাধা সৃষ্টি করে। আর তাই শিশুকে যদি কৃমি মুক্ত রাখা যায় তবে তারা সুন্দর স্বাস্থ্যের অধিকারি হবে এবং তারা তাদের মেধার সঠিক বিকাশ ঘটাতে পারবে। এজন্য আমাদের ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যশিক্ষা, নিরাপদ পানি নিশ্চিত করতে হবে। তবে কৃমি মুক্ত করা সম্ভব হবে।

কসবা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সভাপতি মো. মনিরুজ্জামান এর সভাপতিত্বে কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সমেশ চন্দ্র মজুমদার। শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রহিমা খাতুন। এছাড়াও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডেপুটি সিভিল সার্জন শামীম আরা নাজনীন, সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম, জেলা ইপিআই সুপারিনটেনডেন্ট ইছামুদ্দিন, সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার আশরাফুল ইসলাম, কাউন্সিলর মাসতুরা বেগম পুতুলসহ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক এবং এসএমসি ও পিটিএ এর সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন কসবা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক সুমাইয়া সারমিন।

Spread the love