শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ক্ষতিপুরনের দাবীতে বড়পুকুরিয়া খনি এলাকার ক্ষতিগ্রস্তদের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন।* দাবি আদায় না হলে ২৮ আগষ্ট থেকে বৃহত্তর আন্দোলনের হুশিয়ারী*

মেহেদী হাসান,ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:ক্ষতিপূরণের দাবি ও হয়রানির প্রতিবাদে ৪ দফা দাবিতে দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি এলাকায়  বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন  ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামবাসীরা। দাবি পূরণ না হলে ২৮ আগষ্ট থেকে বৃহত্তর আন্দোলনের ঘোষনা দিয়েছেন গ্রামবাসীরা। বৃহস্পতিবার (১১ আগষ্ট) সকাল ১০টায় জীবন ও সম্পদ রক্ষা কমিটির উদ্যোগে বড়পুকুরিয়া বাজার সড়কে ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামবাসীরা পরিবার-পরিজন নিয়ে মানববন্ধন করেন। পরে তারা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। বিক্ষোভ মিছিলটি বড়পুকুরিয়া পুরাতন বাজার থেকে বের হয়ে পাতরাপাড়া গ্রাম প্রদক্ষিণ করে বড়পুকুরিয়া নতুন বাজারে এসে শেষ হয়।মানববন্ধনে জীবন ও সম্পদ রক্ষা কমিটির সাবেক সভাপতি মো. ইব্রাহিম খলিলের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পার্বতীপুর উপজেলার ৯ নং হামিদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজওয়ান উল হক রেজা, জীবন ও সম্পদ রক্ষা কমিটির আহবায়ক রফিকুল ইসলাম, সদস্য আলহাজ্ব রুহুল আমিন মন্ডল, ইউপি সদস্য সাইদুর ইসলাম, আলহাজ্ব বেলাল উদ্দিন, লিয়াকত আলী মন্ডল, একরামুল হক, গোলাপ প্রমুখ।এসময় বক্তারা তাদের চারদফা দাবি উপস্থাপন করে বলেন, গত ৩/৪ বছরপূর্বে ক্ষতিপূরণের কার্যক্রম শুরু হলেও কেন বাঁশপুকুর ও বৈদ্যনাথপুর গ্রামবাসীদের ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়নি। বাঁশপুকুর ও বৈদ্যনাথপুর গ্রামের ক্ষতিপূরণ না দেয়া পর্যন্ত কয়লা উত্তোলন বন্ধ রাখতে হবে, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার ফাটল ধরা ঘর-বাড়ী ভেঙে কোন প্রাণহানী হলে এর দায়ভার খনি কর্তৃপক্ষকে নিতে হবে, ক্ষতিপূরণের নামে একাবাসীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হয়রানি, অন্যায়, অবিচার, জুলুম, নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।বক্তারা আরও বলেন, আগামী ২৭ আগষ্ট এর মধ্যে তাদের দাবি সমূহ পূরণ না হলে ২৮ আগষ্ট থেকে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুলবেন। প্রয়োজনে লংমার্চ, আমরন অনশন কর্মসূচী দেয়া হবে।মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁশপুকুর ও বৈদ্যনাথপুর গ্রামের পাঁচ শতাধিক নারী-পুরুষ অংশ নেন। 

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email