বৃহস্পতিবার ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ক্ষমতার রদবদলের দিনাজপুর-৬ আসনটি আ’লীগ ধরে রাখতে চায়। বিএনপির’ও জয়ের আশা…

দিনাজপুর প্রতিনিধি: ক্ষমতার রদবদলের আসন হিসাবে পরিচিত দিনাজপুর-৬ (নবাবগঞ্জ,ঘোড়াঘাট,হাকিমপুর ,বিরামপুর) আসনটি আসন্ন ১০ম সংসদ নির্বাচনে ধরে রাখার আশাবাদী আওয়ামীলীগের। ১৮ দলের পক্ষে আসনটিতে জামায়াতের প্রার্থী দেয়া হলেও এবারে জয়ের প্রত্যাশা করছে বিএনপি ও।  দলগুলির মধ্যে গ্রুপিং থাকার কারনে  প্রার্থী দিতে ভূল করলে ভরাডুবির আশংকা রয়েছে। এবারে উভয় দল থেকে  মনোনয়ন প্রত্যাশাদীদের সংখ্যা বেশ বেশী। নির্বাচনী এলাকায় নির্বাচনের সম্ভাব্যপ্রার্থীদের   শুভেচ্ছা সংবলিত বিলবোর্ড,পোষ্টার ও ব্যানারে ছেয়ে গেছে। ১৮ দলীয় জোট ও ১৪ দলীয় মহাজোটের প্রায় ১ ডজন প্রার্থী ওই সব শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। আসনটিতে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আ’লীগ যেমন তাদের কর্মপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন তেমনি বিএনপি জামায়াতও কোমর বেধে মাঠে নেমেছেন। আসনটিতে দেশ স্বাধীনের পর থেকে বড় বড় দলগুলি থেকে একেক বার একেক দল থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তবে একাধারে পর পর কেউই আসনটি ধরে রাখতে পারেন নাই। ৮ম সংসদ নির্বাচনে আসনটি উদ্ধার করে জামায়াতের প্রার্থী অধ্যক্ষ আজিজুর রহমান চৌধূরী। ৯ম সংসদ নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন (লাঙ্গল) ও ১৮ দলের প্রার্থী জামায়াতের  আনোয়ারুল ইসলাম(দাড়িপাল্লা) কে পরাজিত করে আওয়ামীলীগের নৌকা মার্কা নিয়ে বিজয়ী হন আজিজজুল হক চৌধুরী। উল্লেখ থাকে যে তিনি আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন নিয়ে আসার পর আসনটিতে মহাজোট থেকে দেলোয়ার হোসেন কে লাঙ্গল প্রতিকে মনোনয়ন দেয়া হয়। এরপর তিনি হাইকোর্টে রিট করে চ্যালেঞ্জের মাধ্যমে নৌকা মার্কা প্রতিক নিয়েই ভোট করে বিজয়ী হন। ১০ সংসদ নির্বচানে  মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে রয়েছেন ১৮ দলের পক্ষে  ড্যাবের মহাসচিব ডাঃ এ জেড এম জাহিদ হোসেন, নবাবগঞ্জ থানা বিএনপি’র সভাপতি লুৎফর রহমান মিন্টু, সহ-সভাপতি ডাঃ মশিউর রহমান, জামায়াতের আনোয়ারুল ইসলাম ও জিয়া শিশু কিশোর সংগঠনের কেন্দ্রিয় আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. নুরুন্নবী। অপরদিকে ১৪ দলের পক্ষে রয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য ড. আজিজুল হক চৌধুরী, নবাবগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান শিবলী সাদিক, নবাবগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সাঃ সম্পাদক আতাউর রহমান, ঘোড়াঘাটের মোঃ আলী ফেরদৌস  খোকন, বিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান ও কেন্দ্রিয় যুবলীগের সদস্য সুলতানা আক্তার বর্ষা । এছাড়াও জাতীয় পার্টির দিনাজপুর জেলা সভাপতি দেলোয়ার হোসেনও  চাইতে পারেন মনোনয়ন। শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পাখা মার্কা প্রতিক দিয়ে চরমোনাই পীর সাহেবের দলের পক্ষে অধ্যক্ষ মাওঃ মোঃ মোজাহার আলী সরকার । এখন শেষ পর্যন্ত কোন দল থেকে কে মনোনয়ন পান তাই দেখার অপেক্ষা।