শুক্রবার ১২ এপ্রিল ২০২৪ ২৯শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

খালেদা জিয়ার নির্দেশে যারা বোমা মারছে,আগুন দিয়ে মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করছে তারাও খানদানি বোমাবাজ..গণশিক্ষামন্ত্রী

মোঃ ইউসুফ আলী, দিনাজপুরঃ বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার উদ্দ্যেশে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী এ্যাড মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি বলেন,আপনার নেতা কর্মীরা আপনার নির্দেশে সাধারণ মানুষকে বোমা মেরে,আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করছে। সাধারণ মানুষের সাথে আপনাদের শত্রুতা কিসের আমরা জানিনা। আপনারাতো আওয়ামীলীগ তথা আমাদের পতন ঘটাতে চান। তাহলে সাধারণ মানুষকে কেন বোমা মারছেন,আগুন দিয়ে পুড়ে মারছেন ? আপনাদের যদি কোন রাগ থাকে তাহলে সেটা তো আমাদের উপর, তাই সাধারণ মানুষকে বোমা না মেরে আমাদের বোমা মারেন, শেখ হাসিনাকে বোমা মারেন। আপনারা কি মনে করেছেন, অবরোধ করে আর হরতাল দিয়ে আওয়ামীলীগের পতন ঘটাবেন। আওয়ামীলীগ কি পাগলের দল। আগামী তিন মাস এক টানা হরতাল অবরোধ করলেও এই সরকারের পতন ঘটাতে পারবেন না।

তিনি আরো বলেন, ডাক্তারের ছেলে যদি ডাক্তার হয় তাহলে তাকে খানদানি ডাক্তার বলে,উকিলের ছেলে উকিল হলে তাকে খানদানি উকিল বলে। তেমনি মা ছেলে যদি দূর্নীতিবাজ হয় তাহলে তাদেরকে খানদানি দূর্নীতিবাজ বলে। আপনারা মা ছেলে হলেন খানদানি দুর্নীতিবাজ। আপনার(খালেদা জিয়া) নির্দেশে যারা বোমা মারছে,আগুন দিয়ে মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করছে তারাও খানদানি বোমাবাজ।

বিএনপি জামায়াত নির্বাচনে না গিয়ে ভূল করে এখন ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য পাগল হয়ে গেছে। মানুষকে বোমা মেরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করছে। খালেদা জিয়ার ছেলের মৃত্যুর পরও মুখে রং মেখে বাড়ীতে না গিয়ে দলীয় কার্যালয়ে বসে হরতাল অবরোধের ডাক দিচ্ছে। পাগল না হলে ছেলের মৃত্যুর পর কেউ দেশের মানুষের সাথে এ ধরণের আচরণ করতে পারে।

খালেদা জিয়ার বিভিন্ন সময় ৫ জানুয়ারীর নির্বাচন অবৈধ ও এ সরকার অবৈধ দেয়া বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন,খালেদা জিয়া বলেন, এতগুলো এমপি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়া অবৈধ, কেউ যদি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করে তাহলে তো বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেই। সংবিধানের কোন জায়গায় লিখা আছে এই এমপিরা অবৈধ। তিনি ৮৮ সালের নির্বাচনের কথা মনে করিয়ে দিয়ে বলেন সে বার আওয়ামীলীগ,বিএনপি,জামায়াত ৩টি দল নির্বাচনে যায়নি। সেবারকি নির্বাচন হয়নি।

গত ৬ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার হাবড়া ইউপির অন্তর্গত সুদুরডাঙ্গা দাখিল মাদ্রাসার নব-নির্মিত চার তালা ভীত বিশিষ্ট একতলা একাডেমিক ভবনের শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী উপরোক্ত কথা বলেন। মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ আখতারুজ্জামান মন্ডলের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাদ্রাসার সুপার, এ.এস.এম মজিবুর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডঃ পিপি মোঃ হামিদুল ইসলাম। সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডঃ মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মোঃ তৈয়ব উদ্দিন চৌধুরী, পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রাহেনুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রেজাউল করিম, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সাত্ত্বাধীকারী আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ আজগর আলী প্রমুখ।

 

Spread the love