বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গাইবান্ধায় সাংবাদিকের বাড়িতে হামলা লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার প্রতিবাদে বন্ধন ও সমাবেশ

জিল্লুর রহমান মন্ডল পলাশ, গাইবান্ধা

জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার রংপুর বিভাগীয় সভাপতি, গাইবান্ধা প্রেসক্লাব কর্মকর্তা ও জেলা সাংবাদিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সভাপতি দৈনিক যুগের আলোর জেলা প্রতিনিধি নুরম্নজ্জামান প্রধানের পলাশবাড়ি সদরে গাইবান্ধা রোডের বাড়িতে হামলা লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে শনিবার গাইবান্ধা প্রেসক্লাব মোড়ে এক সাংবাদিক বন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে পলাশবাড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাসির উদ্দিন মন্ডলের অপসারণসহ সাংবাদিকের বাড়িতে এই হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের জন্য দায়ী ব্যক্তিদের গ্রেফতার ও শাসিত্মর দাবিসহ গাফিলতিকারি প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের বিরম্নদ্ধে অবিলম্বে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়।

 

গাইবান্ধা জেলা সাংবাদিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি রেজাউন্নবী রাজু, সাধারণ সম্পাদক সরদার মো. শাহীদ হাসান লোটনসহ জেলার প্রেসক্লাব ও অন্যান্য সাংবাদিক সংগঠন নেতৃবৃন্দের মধ্যে গোবিন্দলাল দাস, আবু জাফর সাবু, কেএম রেজাউল হক, দীপক কুমার পাল, আবেদুর রহমান স্বপন, সিদ্দিক আলম দয়াল, আরিফুল ইসলাম বাবু এবং রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গোলাম মারম্নফ মনা, অ্যাড. সিরাজুল ইসলাম বাবু, সমীরণ কুমার সরকার, জিয়াউল হক জনি, সুজন প্রসাদ প্রমুখ। এছাড়া সমাবেশে গাইবান্ধা প্রেসক্লাব, জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটি, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতির গাইবান্ধা জেলা ইউনিট, টেলিভিশন সাংবাদিক পরিষদ, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা গাইবান্ধা জেলা শাখা, জেলা সংবাদপত্র সমন্বয় পরিষদ, অনলাইন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সকল সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ অন্যান্য পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা  অংশ গ্রহণ করেন।

 

সমাবেশে বক্তারা বলেন, নুরম্নজ্জামান প্রধানের বাড়িতে এই নাশকতা চালানোর সময় তাঁর বাড়ির কাছেই চৌমাথা মোড়ে র‌্যাব, বিজিবি ও পুলিশ মোতায়েন থাকলেও তারা নিরব ভূমিকা পালন করে। উপরোক্ত হামলাকারিদের বাধার মুখে স্থানীয় লোকজন দ্রম্নত তার বাড়িতে গিয়ে আগুন নেভাতেও সক্ষম হয়নি। হামলার ঘটনার আগে তিনি পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসক এবং পলাশবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন মন্ডলকে তার বাড়িতে হামলার আশংকার বিষয়টি একাধিকবার অবহিত করেন। সেই সাথে ওই রাসত্মায় মিছিল করার আগেই প্রয়োজনীয় টহল জোরদারের ব্যবস্থা করার অনুরোধ জানানোর পরেও জামায়াত-শিবিরের মিছিল থেকে নুরম্নজ্জামান প্রধানের বাড়িতে হামলা করা হলেও ওসি নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেছেন। সেই জন্য অবিলম্বে পলাশবাড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অপসারণসহ সাংবাদিকের বাড়িতে এই হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের জন্য দায়ী ব্যক্তিদের বিরম্নদ্ধে গ্রেফতার ও শাসিত্মর দাবিসহ গাফিলতিকারি প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের বিরম্নদ্ধে অবিলম্বে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়।

 

উলে­খ্য, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পলাশবাড়ি উপজেলা সদরে জামায়াত-শিবিরের একটি মিছিল থেকে সাংবাদিক নুরম্নজ্জামানের বসতবাড়িতে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে প্রথমে লুটপাট চালানো হয় এবং পরে গান পাউডার ও পেট্টোল বোমা ছুঁড়ে অগ্নিসংযোগ করা হয়। ফলে ওই সাংবাদিকের পরিবারের ধান-চাল, স্বর্ণের অলংকার, টাকা-পয়সা, কাপড়চোপর, আসবাবপত্রসহ গোটাবাড়ি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email