রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঘোড়াঘাটে ইষ্টোবেড়ী চাষে গোলাম মোস্তফা’র যুগ উপযুগী পদক্ষেপ লক্ষ্য”ফর্মালিন মুক্ত ফল”

ইফতেখার আহমেদ খান বাবু : দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট পৌর সভার হিলি মোড়এলাকায় গোলাম মোস্তফা নামক কৃষক চাষ করছেন প্রায় ৯বিঘা জমিতে ইষ্টোবেড়ী। জমিতে গিয়ে দেখাযায়, তিনি ৫০হাজার চারা ৯বিঘা জমিতে অতি যত্নের সহিত চাষ করে পরিচর্যা করছেন,তিনি প্রায় ১০লক্ষ টাকা ব্যায় ইতি মধ্যে করে ৩টিচালানের মধ্যে ১টি বিক্রয় করেপেয়েছেন মাত্র১লক্ষ ২০হাজার টাকা, বাকি গুলোতেকি হবে তিনিতা নিয়ে দুর্চিন্তায় আছেন  বলে জানান, তিনি বলেন আমি যে সময় ইষ্টোবেড়ী তোলা শুরু করেছি সেই সময়  থেকেই হরতাল আর হরতাল তাই আমিই ষ্টোবেড়ী গুলো ঢাকার বাজারে পাঠাতে পারিনাই, তাছাড়া আমাদের এখানে বড় আড়ৎ থেকে পাটি আসতে পারেনাই শুধুযদি গাড়ি ঠিকমতো চলতো তাহলেই আমি অনেক লাভবান হতে পারতাম। আমি ইষ্টোবেড়ীর সঠিক দামটাপাইনাই, তবে চারা গুলো আগামিতেবিক্রয় শরু করলে হয়তো লসের হাত থেকে রক্ষা পাইতে পারি! কারন তিনি প্রতি পিচ চাড়ার পন করেছিলেন ১০টাকা  হাড়ে কিনেন, মস্তফা বলেন যদি সরকারি কর্মকর্তারা আমাদের সাহায্য সহযোগিতা করেন তাহলে ব্যপক হাড়ে ইষ্টোবেড়ী ঘোড়াঘাট উপজেলায় উৎপাদন করা সম্ভাব, এই এলাকার মাটি লাল ও ভুমি গুলো অন্যান্য এলাকা থেকে উচু তাই ফলন বেশি এবং ফল গুলোর আকার বড় হবার সম্ভাবনাও বেশি।তার নিকট প্রায় ৫ লক্ষাধিক নতুন চাড়া তৈরি করে অন্য চাষীদের নিটক বিক্রয় করা সম্ভব,গোলাম মোস্তফাকে যেমন বিভিন্নজেলা/উপজেলা হতে দুর্ভিশোহ কষ্ট করে চাড়া সংগ্রহ করতে হয়েছে, তেমন কষ্ট্যতো আর এই উপজেলার কনো কৃষক-কে করতে হবেনা, হাত বাড়ালেই চাড়া পাওয়া যাবে,আগামিতে ইষ্টোবেড়ী চাষ ঘোড়াঘাট উপজেলায় ব্যাপক হাড়ে বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করছেন, তিনি এই ইষ্টোবেরী চাষে সকল চাষিকে উদ্ধভুদ্দো করার সাথে সাথেকৃষি কর্ম কর্তাকেসাহায্য সহযোগিতা করার আহব্বান জানান তার এই ইষ্টোবেড়ীর প্রজেক্টটি  দেখতে প্রতিদিন অনেকলোক/বেকার যুবক’রা যান এবং তারাচাষে আগ্রহ দেখালে তিনি চারা+সাজেশন দিবেন বলে সকলকেই ইষ্টোবেড়ী চাষে উৎসাহপ্রদান করেন যা দেখা ও জন মহলে জানা যায়।এবপারে উপজেলার কৃষি কর্মকর্ তামোঃ বেলাল হোসেনের নিকট জানতে চাইলে তিনি  সাংবাদিক-কে জানান এই ঘোড়াঘাট উপজেলার বেশিরভাগ জমিতেই ইষ্টোবেড়ী চাষ করা সম্ভব তবে সময় মতোইতা চাষ করতে হবে তাহলে কৃষকরা লাভবান হবেন, সেই সাথে আমরা দেশ বাসিফ র্মালিন মুক্ত দেশিও উৎপাদনকৃত অত্যাধিক মাত্রায় ভিটামিন যুক্ত সুষশাধু ও দামি ফলইষ্টোবেড়ী নিজেদের প্রয়োজন মিটিয়ে বিদেশে রপ্তনিও করতে পারবো বলে আমি বিষসাশ করি।ঘোড়াঘাট থেকে ইফতেখার আহমেদ খান বাবু

Spread the love