শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ ১৩ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘোড়াঘাটে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা স্বামী শ্বাশুরী সহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে শাপলা বেগম (২১) নামে এক গৃহবধুকে যৌতুকের জন্য পিটিয়ে হত্যা করেছে স্বামী এবং শাশুরী। গতকাল শুক্রবার রাতে ঘোড়াঘাট উপজেলার চকবামুনিয়া বিশ্বনাথপুর (ওসমানপুর) উপজেলা সদর থেকে মাত্র ৫০ গজ দুরে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পারিবারিক সুত্রে জনাগেছে, প্রায় সাড়ে ৩ বছর আগে নবাবগঞ্জ উপজেলার ভাদুরিয়ার সাকোপাড়া গ্রামের আঃ সালামের কন্যা শাপলার বিয়ে হয় দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার চকবামুনিয়া বিশ্বনাথপুর (ওসমানপুর) গ্রামের ডাঃ এমাজ উদ্দিনের ছেলে হোটেল ব্যবসায়ী মোঃ আশরাফুলে সাথে। বিয়ের সময় আশরাফুলকে যৌতুক হিসেবে ১ লাখ টাকা, একটি ডিসকভার ১৩৫ সিসি মোটর সাইকেলসহ মোট ৩ লাখ টাকার যৌতুক দেয়া হয়। কিন্তু, বিয়ের এক বছর পার হতে না হতেই, শাপলার উপর শুরু হয় অমানুসিক নির্যাতন ও মারধর। এক বছর আগে আশরাফুলকে আরো এক লাখ টাকা যৌতুক হিসেবে দেয়া হয়। কিন্তু তার পরেও বন্ধ হয়নি নির্যাতন। স্বামীর চাপের মুখে বাধ্য হয়ে গত সোমবার আবার এক লাখ টাকা মূল্যের দুই ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার তার বাবার বাড়ীতে এনে দেয়। এক সপ্তাহ যেতে না যেতেই আশরাফুল আবার ১ লাখ টাকা আনার জন্য স্ত্রী শাপলাকে চাপ দেয়। তাতে শাপলা রাজি না হওয়ায় তাকে প্রচন্ড নির্যাতন করা হয়। নির্যাতন সইতে না পেরে সে [শাপলা] পাশ্ববর্তি গ্রামে তার খালার বাড়িতে আশ্রয় নেয়। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় সে তার স্বামীর বাড়িতে এলে, ইফতারের পূর্বে পাসন্ড স্বামী ও শাশুড়ী পিটিয়ে হত্যা করে লাশ গেটের বাইরে ফেলে রেখে স্বামী ও শ্বাশুরী বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। প্রতিবেশীরা গৃহবধু শাপলাকে স্থানীয় ঘোড়াঘাট হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন। শনিবার সকালে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে মেয়ের বাবা আঃ ছালাম বাদী হয়ে শাপলার স্বামীসহ ৩ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।