রবিবার ২৬ জুন ২০২২ ১২ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘোড়াঘাট পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী ডাকাতের কবলে

আজহারুল আজাদ জুয়েল, দিনাজপুর ॥ ডাকাতির শিকার সাখাওয়াত আলী ঘটনার এক মিনিটের মধ্যে পুলিশের কাছে পৌছালোও পুলিশ মোটরসাইকেল উদ্ধারে কোন পদক্ষেপ না নিয়ে সাখাওয়াতকে নিয়েই ব্যস্ত হয়ে পড়েন। তবে মোটরসাইকেলটি নিয়ে ডাকাত দল চম্পট দেয়।

ঘটনার তারিখ ১৮ জুলাই শুক্রবার রাত পৌনে ১০টা। ঘোড়াঘাট পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী সাখাওয়াত আলী (৩৩) দিনাজপুর থেকে ঘোড়াঘাট যাওয়ার পথে ঘোড়াঘাটের নিতাই সাহার দিঘী এলাকায় ডাকাতদের কবলে পড়েন। ডাকাতরা দড়ি দিয়ে তার পথ রোধ করে তাকে মারধর করতে থাকে এবং মোটরসাইকেলটি ছিনিয়ে নেয়। তিনি দ্রুতই ডাকাতদের কাছ থেকে নিজেকে ছাড়িয়ে দৌড় দেন এবং এক মিনিটের মধ্যে নিকটবর্তী পুলিশী টহল দলের কাছে পৌছে যান।

টহলদলকে তিনি মোটরসাইকেলটি ছিনতাইয়ের কথা বলেন। কিন্তু এসআই কল্যাণ চক্রবর্তীর নেতৃত্বাধীন পুলিশের টহলদল তার মোটরসাইকেল উদ্ধারের চেষ্টা না নিয়ে তাকে গাড়ীতে উঠিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়ার পর ২০ জুলাই দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সহকারী প্রকৌশলী সাখাওয়াত আলী।

এব্যাপারে ঘোড়াঘাট থানায় মামলা দায়েরের চেষ্টা হলেও মামলা নেয়া হয়নি। সাখাওয়াত আলী এই প্রতিনিধিকে জানান, ডাকাতির কবলে পড়ার সাথে সাথে তিনি দৌড় দেন এবং পুলিশের কাছে পৌছে যান। পুলিশ সাথে সাথে মোটরসাইকেলটি উদ্ধারের তৎপর হলে মোটরসাইকেল পাওয়া যেত। কিন্তু পুলিশ সেই দিকে না গিয়ে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে উৎসাহিত হয়ে ওঠে। পুরো টহলদল তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। অথচ এক বা দু জন তাকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে বাকীরা মোটরসাইকেলটি উদ্ধারের চেস্টা করতে পারত। কিন্তু পুলিশ সে ধরনের চেষ্টাই করেনি। এর কারণ কি তা তিনি জানেনা।

প্রকৌশলী সাখাওয়াতের পিতা নিউটাউন ৭নং ব্লক নিবাসী বীর মুক্তিযোদ্ধা জবেদ আলী বলেন, এ বিষয়ে তিনি পুলিশ সুপারের সাথে যোগাযোগ করেন এবং পুলিশ সুপার মামলাটি গ্রহণ করার জন্য ঘোড়াঘাট থানায় নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি মোটরসাইকেলটি উদ্ধারে তৎপরতা চালানোর জন্যও নির্দেশ দিয়েছেন।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email