বৃহস্পতিবার ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চিরিরবন্দরে জেঁকে বসেছে শীত, বেড়েছে মানুষের দূর্ভোগ

মো. রফিকুল ইসলাম, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত দেশের উত্তরের উপজেলা চিরিরবন্দরে শীত যেন জেঁকে বসেছে। থর থরে কাঁপছে মানুষ। আর্কস্মিক ধেঁয়ে আসা হিমেল বাতাস ও শৈত্যপ্রবাহের ফলে শীতের মাত্রা বেড়ে গেছে। প্রচন্ড শৈত্য প্রবাহ ও ঘন কুয়াশায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। পাশাপাশি সাধারণ কাজকর্মও ব্যাহত হচ্ছে। নিত্যন্ত প্রয়োজন ছাড়া লোকজন বাড়ির বাইরে বের হচ্ছেন না। শীতের তীব্রতা বেড়ে  যাওয়ায় ছিন্নমূল  ও নিম্ন আয়ের মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে। শীত নিবারণে হিমশিম খাচ্ছেন দরিদ্র পরিবারের মানুষরা। শীতের তীব্রতায় কাহিল হয়ে পড়েছেন মানুষ। হাঁড় কাঁপানো শীতে বেশি কাহিল হয়ে পড়েছেন দিনমজুর ও রিক্সা-ভ্যান শ্রমিকরা। শীত নিবারণ করতে উচ্চবিত্তদের শরীরে হরেক রকম বাহারী পোশাক পরিহিত দেখা গেলেও তার উল্টো চিত্র নিম্নবিত্ত ও ছিন্নমূল-অসহায় মানুষদের। তারা কোন রকমে খড়কুঁটোতে আগুন জ্বালিয়ে শীতের তীব্রতা থেকে নিজেকে রক্ষা করতে চেষ্টা করছেন। শীতের তীব্রতা বেড়ে  যাওয়ায় শীতজনিত রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। শীতে শিশুদের নিউমোনিয়া ও বয়স্কদের হাঁপানী রোগের প্রাদুর্ভাব বেড়েছে। হাসপাতালগুলোতে শিশু রোগী ভর্তির সংখ্যা বেড়েছে। উপজেলার হাট-বাজারগুলোর নতুন কাপড়ের দোকানগুলোতে তেমন ভিড় পরিলক্ষিত না হলেও পুরাতন কাপড়ের দোকানগুলোতে প্রচন্ড ভিড় লক্ষ্য করা যায়। নিম্ন আয়ের লোকেরা পুরাতন কাপড় কিনে তা দিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন। সরকারী, বে-সরকারী কোন সংস্থাকে দরিদ্র্যদের মধ্যে শীত বস্ত্র বিতরণ করতে দেখা যায়নি।