বুধবার ১৭ অগাস্ট ২০২২ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চিরিরবন্দরে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উদ্বোধনের ২ মাস পেরিয়া গেলেও চাঁদার টাকা না দেয়ায় চিত্তরঞ্জন বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ না পাওয়ার অভিযোগ

বার্তা প্রেরক একরামুল হক চঞ্চল,: চিরিরবন্দরে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ উদ্বোধনের ২ মাস পেরিয়ে গেলেও গ্রাম্য স্ব-ঘোষিত মাতববরের চাহিদা না মেটায় ২৫টি বাড়ীতে পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হলেও জনৈক চিত্তরঞ্জন পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সব পাওনা ও নিয়ম মানলেও চাঁদাবাজের আপত্তির কারণে পল্লী বিদ্যুতের লাইনম্যানরা লাইন সংযোগ বার বার দিতে গিয়েও ফেরৎ আসছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। চিরিরবন্দর উপজেলার ৭নং আউরিয়াপুকুর ইউনিয়নের গালতৈড় (সেগুনীপাড়া) গ্রামে ঘটনাটি। জানা যায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি হতে বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ নেয়ার জন্য ২৬টি বাড়ী আবেদন করে। সেই মোতাবেক প্রতিটি বাড়ী বিদ্যুৎ সরঞ্জামাদী বাবদ ১৪ শত ৬৪ টাকা নিয়মে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির চিরিরবন্দর অফিসে জমা দেয়। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি নিয়ম মাফিক ৭টি পোলের মাধ্যমে সেগুনীপাড়ায় বিদ্যুৎ এর কাজ শুরু হলে জনৈক নগেন্দ্র নাথ রায় এর ছেলে সতীশ চন্দ্র রায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অফিসারকে টাকা দিতে হবে মর্মে প্রতিটি গ্রাহকের কাছ থেকে ৬ হতে ৭ হাজার টাকা উত্তোলন করে আত্মসাত করে বলে বেশ কয়েকজন নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক গ্রাহক জানান। শ্রী চিত্তরঞ্চন রায় টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে সতীশ চন্দ্র রায় এর লোকজন প্রকাশ্যে বকাবাধ্য ও মারপিট করে বলে চিত্ত রঞ্জন অভিযোগ করে।

গত ১৪ আগষ্ট ১৫ তারিখে চিরিরবন্দর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গনে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আয়োজনে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে গালতৈড় সেগুনীপাড়া বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ উদ্বোধন করেন। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লাইনম্যানরা প্রতিটি বাড়ীতে লাইন টেনে সংযোগ দিলেও সতীশ চন্দ্রের লোকজনদের বাধার মুখে অধ্যাবদি লাইন সংযোগ দেয়া সম্ভব হচ্ছেনা বলে চিরিরবন্দর উপজেলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পরিচালক জানান, বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ পাওয়ার আশায় চিত্তরঞ্জন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানসহ প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ধর্না দিচ্ছে।

 

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email