শনিবার ২৫ জুন ২০২২ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চিরিরবন্দরে পুলিশ-অপরাধী সখ্য, প্রতিনিয়ত চুরি-ছিনতাই

দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে ব্যাপকহারে চুরি ছিনতাই বৃদ্ধি পাওয়ায় ব্যবসায়ী, রাজনীতিবিদ, শিক্ষক সমাজ ও সর্ব সাধারনের মধ্যে চরম আতংকের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, চিরিরবন্দর থানায় কর্মরত কয়েকজন পুলিশ সদস্যের সাথে অপরাধীদের প্রকাশ্য ও ভাল সম্পর্ক থাকার সুবাদে এবং অপরাধ নির্বিঘ্ন করতে রাজনৈতিক শেল্টারে থাকা অপরাধীরা প্রতিনিয়ত চুরি-ছিনতাই করছে। চিরিরবন্দর থানার ২ জন এএসআই, ডিএসবি কনষ্টেবল ও মাদকাসক্ত এক কনষ্টেবলের বিরুদ্ধে অভিযোগের অন্ত নাই। তারা চিরিরবন্দরে মাদকব্যবসা পুরোটা নিয়ন্ত্রণ করছে। মাদকের টাকা জোগাড় করতে প্রতিনিয়ত চুরি-ছিনতাই হচ্ছে। গত ১৫ দিনে ২০ টি মোটরসাইকেল চুরি-ছিনতাই হয়েছে।

উপজেলার সাইতাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মোকাররম হোসেনের ব্যবহৃত ডিসকভার, ব্যবসায়ী মনির হোসেনের এ্যাপাচি, আউলিয়াপুকুর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য জুলফিকার ভুট্টোর ডিসকভার মোটরসাইকলসহ আরও ৮টি মোটরসাইকেল রাস্তায় পথরোথ করে ছিনতাই করা হয়েছে। এছাড়াও সাবেক চেয়ারম্যান আবুল হোসেন চৌধুরীর বাড়ী থেকে তার ছেলে রায়হান চৌধুরীর ডিসকভার, বানিযুগী এলাকার আব্দুল মতিন ও তার ভাইয়ের বাড়ী থেকে দুটি হিরো হোন্ডা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আয়ুবর রহমান শাহে্র বাড়ী থেকে দুটি ডিসকভার, নান্দেড়াই গ্রামের মোকছেদ মাষ্টারের বাড়ী থেকে একটি ডিসকভার মোটরসাইকেল চুরি হয়। এ ঘটনায় সচেতনমহল উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। আইন শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ে তারা শংকিত।

উপজেলা নির্বাহী অফিস থেকে  উপজেলা নির্বাহী অফিসারের ছোট ছেলের বাইসাইকেল চুরি হওয়ায় তিনি তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

এ প্রসংগে অফিসার ইনচার্জ মোঃ রওশন মোস্তফা জানান, ইতিমধ্যে অপরাধী ধরতে পুলিশের পক্ষ থেকে ছক সাজানো হয়েছে। চুরি-ছিনতাই রোধে কাজ করছে পুলিশ।

অপরাধীদের সংগে সখ্যতা থাকা ও মাদকব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে এমন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের প্রশ্নে তিনি জানান, খোজখবর নিয়ে ইতিমধ্যে একজনকে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে। পুলিশ হোক অপরাধী হোক অপরাধ করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email