মঙ্গলবার ৪ অক্টোবর ২০২২ ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চিরিরবন্দরে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

দিনাজপুর প্রতিনিধি : সরকারী নিয়মনীতি অগ্রাহ্য করে কর্মচারী নিয়োগের অপপ্রয়াস নেয়ার কারণে চিরিররবন্দর উপজেলার রাসডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সহকারী জজ আদালত চিরিরবন্দরের মোকদ্দমা নং ১৩/১৪। আদালত মামলার বিবাদীদের প্রতি সমন জারি করেছেন। বিবাদীরা হলেন, উক্ত স্কুলের পরিচালনা ও বাছাই কমিটি, স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ, সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার চিরিরবন্দর আব্দুল মান্নান, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আহসান হাবিব, ইউএনও চিরিরবন্দর এবং চাকুরী প্রার্থী আলোকডিহি নিবাসী মৃত নূরম্নল হকের পুত্র মোঃ আমান উলস্নাহ।

মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ১৩.০১.১৪ তারিখে চিরিরবন্দর উপজেলার রাসডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। সে মোতাবেক অন্যান্যের সাথে বাদী ওই উপজেলার আলোকডিহি গ্রামের মোঃ মকবুল হোসেনের পুত্র মোঃ আলমগীর কবির দরখাসত্ম করেন। বাছাই ও নিয়োগ কমিটির যাচাই বাছাই শেষে প্রায় সব দরখাস্তই যথাযথ বিবেচিত হয়।

গত ০৬.০২.১৪ তারিখ বিকালে বাদীকে মৌখিক পরীক্ষার জন্য সাক্ষাৎকারপত্র প্রদান করা হয়। বাদী যথারীতি মৌখিক পরীক্ষা প্রদান  করেন। ৬নং বিবাদী স্বহসেত্ম লিখিত কোন দরখাসত্ম করেননি, কিংবা কোন দরখাসেত্ম স্বাক্ষর পর্যমত্ম করেননি। এরপরও তার দরখাসত্মকে আমলে আনা হয় এবং তাকে সাক্ষাৎকারের জন্য সাক্ষাৎকারপত্র দেয়া হয়। নিয়োগ নির্বাচনী পরীক্ষার ফলাফলে মোঃ আশরাফুল আলম বুলু প্রথম, বাদী দ্বিতীয় এবং মোঃ আমান উলস্নাহ তৃতীয় হয়।

উক্ত দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী পদে নিয়োগের জন্য এ মর্মে একটি তালিকা প্রস্ত্তত করা হয়। তাতে স্কুলের পরিচালনা ও বাছাই কমিটির সভাপতি, স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ, সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার চিরিরবন্দর আব্দুল মান্নান প্রত্যেকেই স্বাক্ষর করেন। নিয়োগ অনুমোদনকারী কর্তৃপক্ষ হিসেবে চিরিরবন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর প্রস্ত্ততকৃত তালিকাও প্রেরণ করা হয়। ইতিমধ্যে প্রস্ত্ততকৃত প্যানেলের ১নং ক্রমিকের প্রার্থী মোঃ আশরাফুল আলমের বিরম্নদ্ধে অভিযোগ উত্থাপিত হওয়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওই তালিকায় স্বাক্ষর করা হতে বিরত থাকেন। তবে বিধি মোতাবেক উত্থাপিত অভিযোগ নিষ্পত্তির জন্য কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

ইতিমধ্যে বর্ণিত স্কুলে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী পদে নিয়োগ ও অনুমোদন স্থগিত থাকা অবস্থায় গত ২০-০২-১৪ তারিখে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আহসান হাবিব চিরিরবন্দর উপজেলার ৩২টি সরকারী বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগের জন্য প্রস্ত্ততকৃত একটি তালিকা ২নং বিবাদী উক্ত স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল ওয়াহেদকে প্রদান করেন। যাতে তালিকামতে যারা প্রথম স্থান অধিকার করেছে তাদেরকে নিয়োগ দেয়ার জন্য প্রধান শিক্ষকদের বলা হয়। ওই তালিকায় রাসডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগ পরীক্ষায় ৬নং বিবাদী মোঃ আমান উলস্নাহকে প্রথম উলেস্নখ করা হয়েছে।

মামলার বিবরণে আরো বলা হয়েছে, যেহেতু রাসডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগ পরীক্ষায় আশরাফুল আলম বুলু প্রথম স্থান অধিকার করলেও তার বিরম্নদ্ধে অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে। তিনি নিয়োগ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন না পাওয়ায় দ্বিতীয় স্থান অধিকারী বাদী আলমগীর কবির উক্ত পদে নিয়োগ পাবার হকদার। বাদী আদালতের কাছে ঘোষণামূলক ও বাধ্যতামূলক ডিক্রির আবদেন করেন। বিজ্ঞ আদালত গত ২৭ মার্চ তারিখে বিবাদীদের প্রতি সমন জারি করে তাদেরকে ২৮ এপ্রিল তারিখে আদালতে উপস্থিত হবার নির্দেশনা দিয়েছেন।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email