রবিবার ১৪ অগাস্ট ২০২২ ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চিরিরবন্দরে বিভিন্ন সড়ক খালখন্দকে ভরপুর, চরম দুর্ভোগ

মো. রফিকুল ইসলাম, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার বিভিন্ন সড়ক এখন বিপদজনক খালখন্দকে ভরপুর হয়ে গেছে। সড়কপথে চলাচলকারী জনগণকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ফলে যাত্রী সাধারণের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, দিনাজপুর-পার্বতীপুর সড়কের ৩৫কি.মি. পাকা রাস্তার পাশে অসংখ্য ছোট বড় অসংখ্য খালখন্দকে ভরে গেছে। বর্ষা মৌসুমে রাস্তার পার্শ্বের মাটি সরে গিয়ে এসব খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। প্রতিনিয়তই এ সড়কের চলাচলকারী সাধারণ যাত্রীদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। অহরহ ঘটেছে ছোট বড় সড়ক দুর্ঘটনা। চলাচলের উপযোগী করার জন্য স্বল্পকালীন মেরামতেরও কোন উদ্যোগ চোখে না পড়ায় যাত্রী সাধারণের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বেলতলীবাজার-বিন্যাকুড়ী-দেবীগঞ্জ রাস্তা, দিনাজপুর-পার্বতীপুর সড়কের আমতলী মোড় হতে মামুদপুর, বেলতলীবাজার-কুতুবডাঙ্গা-উচিতপুর মোড়, চিরিরবন্দর মোড় হতে চিরিরবন্দর থানা, ঘুঘুরাতলী মোড় হতে রাণীরবন্দর সড়কে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের যথাযথ নজরদারী না থাকায় দীর্ঘদিন যাবৎ বড় বড় গর্ত ভরাট ও রাস্তা সংস্কার না করায় জনগণকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। উপজেলার এ রাস্তাগুলো দিয়ে প্রতিনিয়ত বিশেষ করে রাণীরবন্দরহাট, বিন্যাকুড়িহাট, চিরিরবন্দর হাট, আমবাড়ীহাট, পার্বতীপুর হাট, অকড়াবাড়ী হাটের দিনে ধান বোঝাই শ’ শ’ ট্রাক, ট্রাক্টর, পিকআপ, ভটভটি, অটোভ্যান, মটর ভ্যান, মাইক্রোবাস, তেলের লরি ও যাত্রীবাহী কোচ ও লোকাল বাস চলাচল করে। এতে করে রাস্তাগুলোর সমস্যা দিনদিন আরও প্রকট আকার ধারণ করছে। প্রতি বছর উপজেলার বিভিন্ন রাস্তা সংস্কারের কাজ চললেও উপজেলা সদরের প্রাণকেন্দ্রের ব্যস্ততম রাস্তাগুলোর কর্তৃপক্ষের সংস্কারের দিকে তেমন নজর নেই। এলজিইডি কর্তৃপক্ষ তাদের আওতাভুক্ত রাস্তা গুলোতে সংস্কার করলেও সড়ক ও জনপথ বিভাগ চুপ করে রয়েছে। ফলে দুর্ভোগকে উপেক্ষা করে যাত্রী ও সাধারণ জনগণকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে।

কারেন্টহাট ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ জালালউদ্দীন মজুমদার, মন্মথপুর আইডিয়াল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আমিনুর রহমান বলেন, জরুরী ভিত্তিতে সড়কটি প্রশস্ত করা প্রয়োজন। বাসচালক মোকছেদ আলী, ট্রাক চালক আ. রশিদসহ অনেক চালক জানান, খুব সাবধানে গাড়ি চালালেও দুর্ঘটনা ঘটেই যায়।

উপজেলা প্রকৌশলী ফিরোজ আহম্মেদ জানান, তাদের আওতাভুক্ত রাস্তাগুলোতে কার্পেটিং ও প্রয়োজনীয় সংস্কার কাজ করা হয়েছে। কিন্তু অত্র দপ্তর হতে কয়েকটি রাস্তা সড়ক ও জনপথ বিভাগে হস্তান্তর হওয়ায় তাদের করার কিছু নেই। তবে গ্রামীন কয়েকটি রাস্তায় জরুরী ভিত্তিতে গাইডওয়াল নির্মান করা জরুরী।

দিনাজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সুরুজ মিয়া জানান, দিনাজপুর-পার্বতীপুর সড়কের আত্রাই ব্রিজ, কাঁকড়া ব্রিজ, ইছামতি ব্রিজ, গাবুড়া ব্রিজ, ছোট যমুনা ব্রিজসহ ক’টি ব্রিজ পুন:নির্মাণ অতিব জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছে। ব্রিজগুলি নতুনভাবে নির্মিত হলে রাস্তা প্রশস্ত করা সহজ হবে। ইতিমধ্যে ক’টি ব্রিজ নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা সম্পন্ন ও প্রকল্প গ্রহন করা হয়েছে। তবে যানবাহন চলাচলের উপযোগি করতে স্পল্প মেয়াদী কিছু সংস্কার ও মেরামতের কাজ শুরু করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। বরাদ্দপ্রাপ্তি স্বাপেক্ষে সড়কটির প্রয়োজনীয় কাজ করা হবে। দিনাজপুর-পার্বতীপুর সড়কে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েছে চিরিরবন্দরের সাধারণ মানুষ। ট্রেন যোগাযোগ সুবিধাজনক না হওয়ায় অধিক সংখ্যক মানুষ সড়কপথ ব্যবহার করে থাকেন। সড়কপথে চলাচলকারীরা দিনাজপুরের তিন ভিভিআইপি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এমপি, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজার রহমান ফিজার এমপি, জাতীয় সংসদের হুইপ মো. ইকবালুর রহিম এমপিকে সড়কগুলো সংস্কারে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার দাবী জানান।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email