শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চিরিরবন্দর তুলশীপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের এম এইচ ভি রা স্বাস্থ্য সেবায় এলাকায় ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে

চিরিরবন্দর (দিনাজপুর)  প্রতিনিধি : চিরিরবন্দর কমিউনিটি ক্লিনিকের এম এইচ ভি রা স্বাস্থ্য সেবায় এলাকায় ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে  ।  (C.H.C.P) মোঃ কামরুজ্জামান বলেন  তুলশীপুর  কমিউনিটি ক্লিনিকে গড়ে প্রতিদিন ৫৫ থেকে  ৬০ জন রোগী স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করেন । রোগীরাও বলেন  ক্লিনিকের  এম এইচ ভি  কর্মীরা হাসিমুখে রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করেন। সেবা গ্রহিতারা এখানে এসে সহজে সব ধরণের সেবা পান।এখন থেকে রোগীদের বিনামূল্যে ২৫ প্রকার ওষুধ দেয়া হয়। এ কমিউনিটি ক্লিনিকে মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা, প্রজনন স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা সেবা, টিকাদান কর্মসূচি, পুষ্টি, স্বাস্থ্য শিক্ষা পরামর্শ সহ বিভিন্ন প্রকারের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হয় । তুলশী পুর  কমিউনিটি ক্লিনিকের সেবায়  শিশু ও মাতৃ মৃত্যুর হার কমেছে। ক্লিনিকটি প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর রোগ প্রতিরোধে ব্যাপক ভূমিকা রাখছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজ উদ্যোগে ২০০০  সালে  গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার পাটগাতী ইউনিয়নের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর ৬ হাজার মানুষের স্বাস্থ্য সেবা দোড়গোরায় পৌঁছে দিতে ঢাকা-টুঙ্গিপাড়া সড়কের পাশে গিমাডাঙ্গার মল্লিকেরমাঠ এলাকায় গিমাডাঙ্গা কমিউনিটি ক্লিনিক উদ্বোধন করেন। তারপর থেকে সারাদেশে  স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রম শুরু হয়।  ১০নং পুনটি  ইউনিয়নের ৩ টি ওয়ার্ডের প্রায় ১০ হাজার মানুষ এখান থেকে স্বাস্থ্য সেবা পাচ্ছেন।  তুলশী পুর  ক্লিনিক থেকে প্রতিদিন ৫৫ থেকে ৬০ জন রোগীকে বিনামূল্যে  চিকিৎসা সেবাসহ  ২৫ প্রকার ওষুধ দেয়া হয়।
প্রচলিত সেবার পাশাপাশি ভাইটাল রোগ ডায়বেটিস ও হাইপার টেনশনে অক্রান্তদের এখনে প্রাথমিক পরীক্ষা করা হয়। রোগীদের  বড় ধরনের রোগ হলে  উন্নত চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স  পাঠানো হয়। শুধু তাই নয় , করোনা পরিস্থিতি এম এইচ ভি রা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিরলস ভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন  ।গোবিন্দপুর  গ্রামের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক   গৃহবধূ  বলেন, সর্দি, কাশি,জ্বর, আমাশয়, ডায়রিয়া, ব্যাথাসহ সাধারণ সব রোগের চিকিৎসা ও পরামর্শের জন্য তুলশী পুর  কমিউিনিটি ক্লিনিকে যাই । এখানে এম এইচ ভি স্বাস্থ্য  কর্মীরা হাসি মুখে সেবা দেন। তুলশী পুর ক্লিনিকে  সহজে সব ধরণের চিকিৎসা সেবা  ও ওষুধ পাওয়া যায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এটি করে দিয়েছেন। এজন্য বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই।দোয়াপুর ও তুলশী পুর  গ্রামের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি  বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিক আমাদের স্বাস্থ্যসেবাকে সহজ করে দিয়েছে। তুলশীপুর  কমিউনিটি ক্লিনিকের এম এইচ ভি  কর্মরত সবাই আন্তরিক। এখান থেকে আমরা চিকিৎসা সেবার পাশাপাশি সব ধরণের স্বাস্থ্য শিক্ষা পরামর্শ পেয়ে উকৃত হচ্ছি। এতে আমরা সংক্রামিত রোগ প্রতিরোধ করতে পারছি। পরিবারের সদস্যরা তুলনা মুলকভাবে কম অসুস্থ হচ্ছে।
চিকিৎসা ব্যয় কমেছে। জটিল ও কঠিন রোগ নিয়ে এ কমিউনিটি ক্লিনিকে গেলে তারা সু পরামর্শ দেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য চিরিরবন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  পাঠিয়ে দেন । এতে আমরা খুবই উপকৃত হই। কমিউনিটি ক্লিনিক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চিন্তার ফসল।  কমিউনিটি ক্লিনিক করে দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানাই।
পুনটি  গ্রামের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি  বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিক ছোট একটি ক্লিনিক । কিন্তু এখানে সেবার পরিধি ব্যাপক। তুলশী পুর  কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা বান্ধব পরিবেশ আছে। তাই এখান থেকে থেকে  সব ধরণের স্বাস্থ্য সেবা পেয়ে আমরা ধন্য। এ কারণে কমিউনিটি ক্লিনিকের রূপকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আমরা বিশেষ কৃতজ্ঞ।
কমিউনিটি ক্লিনিক স্বাস্থ্য সহায়তা  ট্রাস্টের সভাপতি মোঃ লোকমান হোসেন   বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিক গ্রামের মানুষের জন্য বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি কল্যাণকর উদ্যোগ। এটি জীবন বাঁচাতে সহায়তা করছে।শিশু ও মাতৃ মৃত্যুর হার কমাতে ভূমিকা রাখছে। গ্রামের মানুষের রোগ প্রতিরোধে কাজ করে চলেছে ।
তুলশীপুর কমিউনিটি  ক্লিনিকের হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার ( C. H. C. P ) মোঃ কামরুজ্জামান বলেন  কমিউনিটি ক্লিনিকের সেবার মান আরো গতিশীল করতে আমরা উদ্যোগ নিয়েছি। আমরা কমিউনিটি ক্লিনিক মনিটরিং ও সুপাভিশনের মাধ্যমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর দোড়গোরায় স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দেওয়ায় আমাদের কর্তব্য ।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email