শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ

নাগরিক কমিটির পক্ষ থেকে মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রগতিশীল লেখক ড. অভিজিৎ রায় স্মরণে এক নাগরিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর সি মজুমদার আর্টস অডিটোরিয়ামে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের এমিরিটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাবেক ডেপুটি স্পিকার কর্ণেল শওকত আলী, অভিজিৎ রায়ের পিতা অধ্যাপক অজয় রায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনেরর প্রতিনিধি এবং নাগরিক সমাজের সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের পক্ষ থেকে বক্তব্য প্রদান করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক ‘মুক্তমনা’ ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রগতিশীল বিজ্ঞান লেখক ড. অভিজিৎ রায়-এর হত্যাকারীদের অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি দাবি জানান।

উপাচার্য বলেন, অভিজিৎ-এর পিতা যখন বলেন, অভিজিৎকে হত্যা করা হলেও অভিজিৎ-এর চিন্তা ও দর্শনকে হত্যা করা যাবে না, এই সাহসী প্রত্যয় আমাদেরও সাহসী ও উদীপ্ত করে। অভিজিৎ-এর পিতা ও পরিবারের প্রতি উপাচার্য সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

সমাবেশে শিক্ষাবিদ, অভিজিতের বন্ধু-বান্ধব, শুভানুধ্যায়ী, প্রকাশক, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিকসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভার শুরুতে নাগরিক সমাজের পক্ষ থেকে প্রতিবাদপত্র পাঠ করেন জিয়াউদ্দিন তারেক আলী, অভিজিতের জীবনী পাঠ করে শোনান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস।

উল্লেখ্য, অভিজিৎ রায় গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ একুশের বই মেলা থেকে সন্ত্রীক বাসায় ফেরার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় টিএসসি’র কাছে অজ্ঞাতনামা দুষ্কৃতকারীর হামলায় মর্মান্তিকভাবে নিহত হন।

Spread the love