শনিবার ২ মার্চ ২০২৪ ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জবাব সরকারকেই দিতে হবে-ভাসানীর মাজারে কাদের সিদ্দিকী

শান্তির দাবিতে ঘোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী টাঙ্গাইলের ভাসানীর মাজার প্রাঙ্গণের অবস্থান কর্মসূচি পালনকালে বলেন, আহত মানুষের সামনে গিয়ে কান্নাকাটি করে দায় থেকে শেখ হাসিনা রেহাই পাবেন না। কোনো বাড়িতে চুরি হলে সবার আগে পাহারাদারকে জবাব দিতে হয়, তেমনি পেট্রোলবোমা যেই মারুক, জবাব সরকারকেই দিতে হবে।’

বৃহস্পতিবার সকালে টাঙ্গাইলে ভাসানীর কবর জিয়ারত শেষে অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নেয়।

তিনি বলেন, ‘কেউ হরতাল-অবরোধ না মানলেও বিএনপি নেত্রী প্রায় তিন মাস যাবত অবরোধ চালিয়ে যাচ্ছেন। ফলে এ দেশের কৃষক-শ্রমিক খেটে খাওয়া মানুষের পেটে লাথি পড়েছে। অন্যদিকে দেশের মানুষকে পাহারা দেওয়ার দায়িত্ব যার, সেই প্রধানমন্ত্রী মানুষের নিরাপত্তা দিতে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন।

এ সময় কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার দাবিতে সাড়া না দিলে দুই নেত্রীকে বাংলাদেশের জনগণই প্রত্যাখ্যান করবে।’

শান্তির দাবিতে ভাসানীর মাজার প্রাঙ্গণের অবস্থান কর্মসূচিতে কাদের সিদ্দিকীর সঙ্গে রয়েছেন— ভাসানীর দৌহিত্র হাসরত খান ভাসানী, ভাসানী আদর্শ অনুশীলন পরিষদ ও ভাসানী একাডেমির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ হোসেন। তারা ভাসানীর মাজারে কাদের সিদ্দিকীকে স্বাগত জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান, যুগ্ম-সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী, আনিসুর রহমান, টাঙ্গাইল জেলা সভাপতি এ এইচ এম আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম, যুব আন্দোলনের আহ্বায়ক হাবিবুন্নবী সোহেল, ছাত্র আন্দোলনের আহ্বায়ক রিফাতুল ইসলাম দীপ, যুগ্ম-আহ্বায়ক কাওছার জামান খান, শাহীনুর আলম প্রমুখ।

কাদের সিদ্দিকী বৃহস্পতিবার রাতে মাওলানা ভাসানীর মাজারে অবস্থান করবেন, মায়ের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আগামী শনিবার টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে মায়ের কবর জিয়ারত শেষে সখীপুরে অবস্থান করবেন। আগামী ৬ এপ্রিল সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে একদিন অবস্থান করে ৭ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কবর জিয়ারতের লক্ষ্যে টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশে রওয়ানা করবেন।

Spread the love