শনিবার ২১ মে ২০২২ ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জমে উঠেছে বোদা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনঃ প্রার্থীদের প্রচার প্রচারণা তুঙ্গে

Boda Elaction মোঃ নুরেহাবিব সোহেল,বোদা (পঞ্চগড়) প্রতিনিধিঃ

১৯ ফেব্রুয়ারি উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বোদা উপজেলা নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা জমে উঠেছে। প্রার্থীদের  প্রচার প্রচারণা এখন তুঙ্গে। নির্বাচন যত ঘনিয়ে আসছে প্রচারণাও তত বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রার্থীদের কাছে ভোটারদের কদর বাড়ছে। প্রার্থীদের প্রতীক সম্বলিত পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে নির্বাচনী এলাকা। হাটবাজার,হোটেল রেস্তরা গুলোতে এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু উপজেলা পরিষদ নির্বাচন । বোদা উপজেলায় একটি পৌরসভাসহ ১০টি ইউনিয়নের  ১লক্ষ ৪৬হাজার ২শত ৪৯জন এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৭৩ হাজার ৫৯ জন ও মহিলা ভোটার ৭৩ হাজার ১শ নববই জন। বোদা উপজেলা নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রার্থী ফারুক আলম টবি (কাপপিরিচ),৭নং চন্দনবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল (মোটর সাইকেল),বিএনপি প্রার্থী আফজাল হোসেন(আনারস), বিএনপির অপর প্রার্থী মজনুর রহমান (ঘোড়া),বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল আজিজ (হেলিকপ্টার) জামায়াতে ইসলামীর প্রার্থী সফিউল্লাহ সফি(দোয়াত কলম) প্রতীক নিয়ে ভোট যুদ্ধে অবতীর্ন হয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী ৬ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। অনেক প্রার্থীই কর্মী,সমর্থকদের নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন । গত সংসদ নির্বাচন নিরুত্তাপ থাকায় এবারের উপজেলা নির্বাচনে মানুষের অংশগ্রহন বেশিই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। গ্রামেগঞ্জে উৎসবমুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে । আর প্রার্থীরাও ভোটারদের শোনাচ্ছেন নানা রকম আশার বাণী। তবে এবার প্রার্থী নির্বাচনে ভোটাররা অনেক হিসাব-নিকাশ কষছেন। প্রার্থীরা চষে বেড়াচ্ছেন গ্রাম থেকে গ্রামে,পাড়া মহল্লায়। এদিকে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে একক প্রার্থী থাকলেও বিএনপি-জামাত জোটের একাধীক প্রার্থী মাঠে রয়েছে। ফলে আওয়ামীলীগের প্রার্থী ফারুক আলম টবি অনেকটা সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে। তবে প্রতিনিয়তই ভোটের হিসাব নিকাশে পাল্টাচ্ছে ভোটারদের সিদ্ধান্ত। সে মোতাবেক আওয়ামীলীগ প্রার্থী অধ্যাপক ফারুক আলম টবির সাথে মোয়াজ্জেম হুসেন বাবুল ও জামায়াত সমর্থীত সফিউল্লাহ সফির সাথে ত্রিমুখী চুড়ান্ত লড়াই হবে বলে স্থানীয়রা ধারনা করছেন। উপজেলা নির্বাচনে মিছিল, শোডাউন, জনসভা,শোভাযাত্রা নিষিদ্ধ করেছে নির্বাচন কমিশন। ধর্মীয় উপাসনালয়ে প্রচারণা, উসকানিমুলক বক্তব্য দেয়া যাবে না মর্মেও নির্দেশ জারি করা হয়েছে। তাই প্রচার-প্রচারণায় অনেক বিঘ্ন ঘটছে প্রার্থীদের। তাদের শুধু মতবিনিময়,মাইকিং আর পোস্টার বিলির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকতে হচ্ছে। কিন্তু অনেক প্রার্থী এসব আচরণবিধি লঙ্ঘন করে শোডাউন, মোটর সাইকেল শোভাযাত্রা সহ মিছিল চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email