বুধবার ১৭ অগাস্ট ২০২২ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জাতীয় তামাকমুক্ত দিবসের আলোচনা সভায় সিভিল সার্জন

দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ ইমদাদুল হক বলেছেন, ১৯৫০ সালে তামাকের কারণে মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৩ লাখ, ১৯৭৫ সালে এ সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ১৩ লাখ, ২০০০ সালে ২১ লাখ এবং প্রতি বছর প্রায় ৫০ লাখ। আগামী ২০২৫ থেকে ২০৩০ সালে উন্নত দেশে এ মৃত্যুর সংখ্যা হবে ১ কোটি। তামাক নিয়ন্ত্রণ শুধু আইন দিয়ে বাস্তবায়ন হবে না। এ জন্য চাই ব্যাপক গণসচেতনা বৃদ্ধি সহ সামাজিক আন্দোলন। আগামী প্রজন্মকে তামাকমুক্ত সুন্দর পৃথিবী উপহার দিতে হলে জিও-এনজিও সহ সর্বস্তরের মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে।

‘‘তামাক নিয়ন্ত্রন অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধ ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা হেলথ প্রমোশন ফাউন্ডেশন চাই’’-এই মূল্য সূরকে সামনে রেখে গত ৯ অক্টোবর শুক্রবার জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ দিবস উপলক্ষে সিভিল সার্জন কার্যালয় মিলনায়তনে জেলা মাদক বিরোধী জোট দিনাজপুরের আয়োজনে ও বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোট-ঢাকা’র সহযোগিতায় এবং ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ দিনাজপুর, ব্রীজডো, অনুঘটক সংস্থা, ব্র্যাক দিনাজপুর, পল্লীশ্রী, ডেভেলপমেন্ট কাউন্সিল (ডিসি) বিরামপুর, সিপিইউএস, আরসিডি, প্রভাতী, সিডিসি, বিকাশ, তামাক বিরোধী নারী জোট (তাবিনাজ) ও মহিলা স্ব-নির্ভর সংস্থার সহযোগিতায় আলোচনা সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন। জেলা তামাক বিরোধী জোট দিনাজপুরের সভাপতি কানিজ ফাতেমা বেগম এর সভাপতিত্বে মূল্য প্রবন্ধ পাঠ করেন ডিসি’র নির্বাহী পরিচালক মোঃ হাফিজুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জোটের সাধারণ সম্পাদক মির্জা ওবায়দুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ শহিদুল মান্নাফ কবীর। জোট সদস্য ও উত্তর বাংলার নির্বাহী সম্পাদক জিনাত রহমান, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান তারিকুন বেগম লাবুন ও উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার মোঃ মাইনুল ইসলাম। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন অনুঘটক সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম বাবলু, সিডিসির নির্বাহী পরিচালক যাদব চন্দ্র রায়, বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় ও পূর্ণবাসন সংস্থান সাধারণ সম্পাদক বিলকিস আরা ফয়েজ। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন সিভির সার্জন কার্যালয়ের জুনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মোঃ নুরুল ইসলাম।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email