শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জয়পুর হাট ও দিনাজপুর সীমান্ত দিয়ে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার চোখকে ফাকি দিয়ে অস্ত্র ও গুলি আসছে

বেলাল, দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুর ও জয়পুরহাট সীমান্ত এলাকা দিয়ে চোরাকারবারীরা আইন প্রয়োগ কারী সংস্থার চোককে ফাকি দিয়ে দেধারছে বিভিন্ন পন্থায় অস্ত্র আনছেন। গত ২৪শে ফেব্রয়ারী বিরামপুর উপজেলার কাটলা বিশেষ ক্যাম্পের হাবিলদার মোঃ মনির গোপন সূত্রের সংবাদ পেয়ে ঐ দিনে ভোর ৬টায় মনিরামপুর স্কুলেরর পার্শে অস্ত্র ব্যবসায়ীরা একটি বাজার করা ব্যাগ ফেলে পালিয়ে যান।ব্যাগটি তল্লাশি করে ব্যাগে রাখা ১টি জার্মানির পিস্তল ২টি ম্যাগজিন ও ৬ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেন। গত ১৫ই ফেব্রয়ারী জয়পুর হাট ৫ র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন এর র‌্যাবের ডিএডি মোঃ সাইফুল ইসলাম গোপন সূত্রের সংবাদ পেয়ে পাঁচবিবি উপজেলার চাঁদপাড়া মোড় ও কামুদিয়া সড়কের পার্শ্বে ওৎ পেতে থেকে বগুড়া সদর থানার মোঃ রফিকুল ইসলাম এর পুত্র মোঃ রকিবুল(৩৯) এবং একই উপজেলার শাহাজান পুর থানার ফুলতলা ফুলদিঘী গ্রামের মৃত খয়বর হোসেনের পুত্র মোঃ মাহবুবুর রহমান (৪০) কে একটি জার্মানির তৈরী ১টি পিস্তল, ২৬রাউন্ড গুলি, ৪টি মোবাইল সেট, নগদ ৬৩ হাজার ৫শত টাকা, একটি ইয়ামা এফ জেড এস মটর সাইকেল এবং ইয়াবা ট্যাবলেটসহ আটক করেন। গত ২২শে জানুয়ারী পাঁচবিবি থানার পুলিশ গোপন সুত্রের সংবাদ পেয়ে ১টি পিস্তল, ২টি ম্যাগজিন, ও ৫রাউন্ড গুলি সহ ১জন কে আটক করেন। গত ১৫ই ফেব্রয়ারী ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবির টহল দল নবাবগঞ্জ উপজেলার আফতাবগঞ্জ বাজারের মাষ্টার পাড়া গ্রামে একটি চটের ব্যাগ ফেলে রেখে পালিয়ে যায় চোরাকারবারীরা। ব্যাগটি তল্লাশি করে ব্যাগ থেকে ১টি পিস্তল, ও ২২ বোতল ফেন্সিডিল বিজিবির সদস্যরা উদ্ধার করে। গত ১৫ই ফেব্রয়ারী বিরামপুর থানার পুলিশ গোপন সূত্রের সংবাদ পেয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় কলেজ মোড় থেকে ১টি জার্মানি পিস্তল, ২টি ম্যাগজিন, ও ৫ রাউন্ড গুলি সহ ২জন কে আটক করে। আটককৃতরা হলেন নবাবগঞ্জ উপজেলার ছোট হাতিশাল গ্রামের মৃত আনিছুর রহমানের পুত্র মোঃ মামুনুর রশিদ (৩৫) একই উপজেলার বাজিদপুর গ্রামের শাহার আলীর পুত্র মোঃ জিয়াউর রহমান (২৯)। খবর নিয়ে যানা যায় দীর্ঘ দিন ধরে দিনাজপুর ও জয়পুরহাট সীমান্ত দিয়ে এক শ্রেণীর অস্ত্র ও চোরাকারবারী ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি সীমান্তে এবং ট্রেনে চোরাচালানীর ব্যবসাও বেড়ে গেছে। বিভিন্ন কৌশলে চোরাকারবারীর ব্যবসায়ীরা অস্ত্র সহ ভারতীয় বিভিন্ন পণ্যের ব্যবসা করছে। ফলে এই এলাকায় দিন দিন চোরা পথে অস্ত্র আসায় স্থানীয় জনগন উৎবিগ্ন হয়ে পরেছে। এ ব্যাপারে সীমান্ত এলাকায় আইন প্রয়োগকারী সংস্থা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিলে দিন দিন চোরাকারবারীরা তাদের ব্যবসা জোরদার করবে।

Spread the love