শুক্রবার ২৭ মে ২০২২ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জয় পেল আয়ারল্যান্ড

বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বের ম্যাচে ৫ রানের শ্বাসরুদ্ধকর জয়টাই পেল আয়ারল্যান্ড। আইরিশদের দেয়া ৩৩২ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে মেনে ৪৯.৩ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে ৩২৬ রান তুলতে সক্ষম হয় জিম্বাবুয়ে। আইরিশ বোলারদের সামনে জিম্বাবুয়ে ব্যাটসম্যানরা শুরুতেই হোঁচট খায়। দলীয় ৭৪ রানে টপঅর্ডারের ৪ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ধুঁকতে থাকা জিম্বাবুয়ে কিছুটা হলেও বিপর্যয় কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করে। তবে ইনিংসের ৩৮তম ওভারে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সপ্তম শতক হাঁকিয়ে জিম্বাবুয়ের দলপতি ব্রেন্ডন টেইলর বিদায় নিলেন। ৭৯ বলে শতক হাঁকানো এ ডানহাতি ব্যাটসম্যান কুসাকের বলে কেভিন ও’ব্রাইনের তালুবন্দি হওয়ার আগে ৯১ বল মোকাবেলা করে ১১টি চার আর ৪টি ছক্কার সাহায্যে ১২১ রান করেন। শেন উইলিয়ামস এবং পাঁচ হাজারি ক্লাবের টেইলর মিলে ১৪৯ রানের জুটি গড়েন। ৩৮ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ৫ উইকেট হারিয়ে ২২৪ রান। এর পর একেক করে সব গুলো উইকেই হারায় জিম্বাবুয়ে।
এর আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ব্যাট করতে নেমে এড জয়েসের সেঞ্চুরি ও এন্ডি বালবিরনি দারুণ ব্যাটিংয়ে ওপর ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩৩১ রান সংগ্রহ করে আয়ারল্যান্ড। আয়ারল্যান্ডের এড জয়েস ওয়ানডে ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতকের দেখা পেয়েছেন। ৩ ছাক্কা ও ৯টি চারের সাহায্যে ১০৩ বলে ১১২ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন জয়েস। ৪ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে  এন্ডি বালবিরনি ৪ রানের জন্য ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পেলেন না। আউট হওয়ার আগে ৭৮ বলে ৯৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন বালবিরনি। ৪ ছক্কা ও ৭টি চারের সাহায্যে ইনিংস সাজান তিনি। এছাড়াও ওপেনার উইলিয়ামস পোর্টারফিল্ড ২৯, কেভিন ও’ব্রায়েন ২৪ ও গ্যারি উইলসন ২৫ রান করেন। জিম্বাবুয়ের বোলারদের মধ্যে তেন্দাই চাতারা ও শন উইলিয়ামস ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন।
হোবার্টের বেলরিভ ওভালে দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার সম্ভাবনা নিয়ে বিশ্বকাপের ৩০তম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমেছে আয়ারল্যান্ড। আইরিশদের দুই ওপেনার তিনাশে পানিয়াঙ্গারার বলে প্রথম ওভার থেকে তুলে নেন ৯ রান। তবে এই পানিয়াঙ্গারার বলে তৃতীয় ওভারের শেষ বলে সাজঘরে ফেরেন স্টার্লিং। দলীয় ১৬ রানের মাথায় পয়েন্টে দাঁড়ানো উইলিয়ামসের তালুবন্দি হওয়ার আগে স্টার্লিং করেন ১১ বলে ১০ রান। আরেক ওপেনার উইলিয়ামস পোর্টারফিল্ড ব্যক্তিগত ২৯ রান আউট হয়ে সাজঘরে ফিরেন। এরপর জয়েস ও এন্ডি বালবিরনি দারুণ ব্যাটিংয়ের সুবাদে বড় স্কোর দাঁড় করায় জিম্বাবুয়ের সামনে। ওয়ানডেতে সর্বশেষ ২০১০ সালে দ্বি-পাক্ষীয় সিরিজে দেখা হয়েছিল দু’দলের। হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে শেষবারের দেখায় স্বাগতিক জিম্বাবুয়েকে ২০ রানে হারিয়েছিল আইরিশরা।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email