সোমবার ৫ জুন ২০২৩ ২২শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঠাকুরগাঁও চিনিকলে জালিয়াতির মাধ্যমে অর্থ আত্নসাতের অভিযোগ

রবিউল এহসান রিপন, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁও চিনিকলের মিল স্পিড রিডাকশন গিয়ার, শ্যাফ্ট জার্নাল বিয়ারিং এর যন্ত্রপাতি মেরামতের নাম করে প্রায় ১০ লক্ষ টাকা আত্নসাতের অভিযোগ উঠেছে চিনিকল কর্তৃপক্ষের উপর।

 

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ঠাকুরগাঁও চিনিকল কারখানা বিভাগের প্রায় ১০ লক্ষ টাকার যন্ত্রপাতি মেরামত দেখিয়ে উদ্ধতর্ন কর্মকর্তা আত্নসাত করেছেন। যন্ত্রপাতি মেরামত বিষয়ে জানা যায় যে কারখানার নিজস্ব মেকানিক্স ও ফিটার খালাসিদের দ্বারা কাজ সম্পূর্ণ করা হয়। (ঠাচিক/বানি/ক্রয়/২১/২০১৩/সিটি-২৫০এ) (এ)/ ৫০৫৫ তাং ১৭/০৬/২০১৪ এ স্মারক পত্রে দেখা যায়, যন্ত্রপাতির মেরামত কাজে ওই সময় হক মেটাল ওয়ার্কশপ ঠনঠনিয়া বগুড়ার এ প্রতিষ্ঠানকে প্রায় ১০ লক্ষ টাকার দরপত্রের মাধ্যমে কাজ প্রদান করা হয়েছে।

 

হক মেটাল ওয়ার্কশপের মালিক হূমায়ুন কবিরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমরা ঠাকুরগাঁও চিনিকলে ২০১২ থেকে ২০১৫ সাল পর্যমত্ম কোন প্রকার কাজ করি নাই। ঠাকুরগাঁও চিনিকলে হক মেটাল ওয়ার্কশপের প্যাডে ৫০ ভাগ বিল পরিশোধ দেখানো হয়েছে এ বিষয়ে তিনি জানান, ওয়ার্কশপের কিছু কর্মকর্তার যোগসাজসে সাদা প্যাড দিয়ে এমনি ঘটনা ঘটেছে বলে তিনি জানান। এবং যে চেকের মাধ্যমে বিল পরিশোধ করা হয়েছে তাতে তার সই/সাক্ষ র নেই বলে নিশ্চিত করেন। ১৭/০৬/২০১৪ ই তারিখে হক মেটাল ওয়ার্কশপের নামে কাজ প্রদান ও বিলের ৫০% বিল পরিশোধের পুরো বিষয়টি সাজানো।

 

ঠাকুরগাঁও চিনিকল কারখানার এক মেকানিক্স মুক্তিযোদ্ধা খগেন্দ্র জানান, মেরামত কাজে ৮০ হাজার টাকা শ্রমিকদেরকে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু টাকা উত্তোলন করেন প্রায় ১০ লক্ষ টাকা। এই টাকা আত্নসাতকারীদের বিচার দাবি করেন তিনি।

 

সুগার মিল কারখানা ব্যবস্থাপনা পরিচালক এনায়েত হোসেনের কাছে টাকা আত্নসাতের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে তদমত্ম কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা তদমত্ম করে গিয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেবে তারা।