শনিবার ২৫ জুন ২০২২ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ডাঙ্গীপাড়া বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত সুপারিনটেনডেন্টের বিরুদ্ধে মামলা খারিজ

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার ডাঙ্গীপাড়া ভোকেশনাল কারিগরি উচ্চ বিদ্যালয়ে জাল সার্টিফিকেট দিয়ে ট্রেড ইন্সট্রাক্টর পদে নিয়োগ নেওয়াকে কেন্দ্র করে দীর্ঘ সময় আদালতে মামলা চলার পর অবশেষে তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত সুপারিনটেনডেন্ট আহসান হাবিব মামলা থেকে অব্যাহতি পেয়েছে বলে জানা গেছে।
বিবাদী পক্ষ নিম্ন আদালতে রায়ের বিপক্ষে উচ্চ আদালতে আপিল করেন অপরদিকে বিবাদী আহসান হাবিব নিম্ন আদালতের রায় বহাল রাখার জন্য উচ্চ আদালতে রিভিউ পিটিশন করলে উচ্চ আদালত ৬ মাসের জন্য আপিল স্থগিত করে নিম্ন আদালতের রায় বহাল রাখেন। কিন্তু বিবাদী মামলা থেকে অব্যাহিত পেয়েও ম্যানেজিং কমিটি আহসান হাবিবকে তাঁর নিজ কর্মস্থলে (ট্রেড ইন্সট্রাক্টর পদে) যোগদান করতে দিচ্ছেনা। উচ্চ আদালতের রায়ের পরেও বিবাদী আহসান হাবিব চাকুরী ফিরে না পাওয়ার কারণে বর্তমানে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছে।
অভিযোগকারী আহসান হাবিব জানায়, ঠাকুরগাঁও জেলাধীন হরিপুর উপজেলায় ডাঙ্গীপাড়া ভোকেশনাল কারিগরি উচ্চ বিদ্যালয় নামক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি আমার মায়ের দানকৃত ৫০ শতক জমির উপর ২০০০ইং সালে স্থাপিত হয়ে ২০০২ইং সালে এমপিও ভূক্ত হয়। বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই আমি আহসান হাবিব ট্রেড ইন্সট্রাক্টর পদে নিয়োগ নিয়ে তৎকালীন ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্তক্রমে ভারপ্রাপ্ত সুপারিনটেনডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলাম। বিদ্যালয়টি এমপিও ভূক্ত হওয়ার পর সরকারি বিধি মোতাবেক আমার বেতনভাতা আসে। এরই মধ্যে হাসান আলী নামে জনৈক এক ব্যক্তি আমার বিএ পরীক্ষার সনদপত্র জাল বলে অভিযোগ করলে তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সার্টিফিকেট যাচাইয়ের জন্য ০২/১০/২০০৩ইং তারিখে বিদ্যালয়ে পরিদর্শন আসেন। কিন্তু সে সময় আমার সনদপত্র গুলো কারিগরি শিক্ষাবোর্ডে থাকায় তৎক্ষণাৎ দেখাইতে ব্যর্থ হলে, ম্যানেজিং কমিটি সূ-কৌশলে আমার বেতনভাতা বন্ধ করে দেয়। বিষয়টি নিয়ে বেশ কয়েক দফা আলাপ-আলোচনা হওয়ার পরও ম্যানেজিং কমিটির ছত্রছায়ায় হাসান আলী নামে জনৈক ব্যক্তি ০২/০২/২০০৫ইং সালে আমার বিরুদ্ধে চিফ জুডিশিয়াল আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলাটি দীর্ঘ সময় চলার পর ১৯/০৭/২০১১ইং তারিখে চিফ জুডিশিয়াল আদালত মামলাটি খারিজ করে আমার পক্ষে রায় দেন। এ রায়ের বিপক্ষে বাদী পক্ষ হাইকোর্টে আপিল করেন। আমি নিম্ন আদালতের রায় বহাল রাখার জন্য উচ্চ আদালতে রিভিউ পিটিশন করলে উচ্চ আদালত ৬ মাসের জন্য আপিল স্থগিত করে নিম্ন আদালতের রায় বহাল রাখেন। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু ছালেহ মো. মুসা জঙ্গী বলেন আদালতে রায় হাতে পাইনি।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email