মঙ্গলবার ১৬ অগাস্ট ২০২২ ১লা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ডিমলায় আগাম শীতের লেপ তোষক বাননোর প্রস্তুতি

জয়নাল আবেদীন, গয়াবাড়ী ইউনিয়ন প্রতিনিধি,ডিমলা : নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলায় আগাম শীত উপলক্ষে লেপ-তোষক তৈরিতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেজ লেপ-তোষক কারিগর ও ব্যবসায়ীরা। দিনে গরম, রাতে ঠান্ডা আর সাতসকালে ঘাস, লতাপাতার ওপর জমে থাকা শিশির বিন্দু জানান দেয় শীতের আগমণী বার্তা। জানা গেছে, ডিমলা উপজেলায় আগাম শীত জেঁকে বসার কারণে লেপ- তোষক বিক্রি বেড়ে যাওয়ায় খোশমেজাজে দিন কাটাচ্ছে কারিগর ও লেপ-তোষক ব্যবসায়ীরা। মধ্যবিত্ত-নিম্নবিত্ত মানুষের কম্বল খোঁজাখুঁজি শুরু না হলেও শীত মোকাবেলায় বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের লেপ-তোষকের দোকানগুলোতে ভীড় করতে শুরু করেছেন। গত কয়েকদিন ধরে উপজেলার বিভিন্নস্থানে ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলা সদর. বাবুর হাট, খগার হাট,কলোনি বাজার, পাগল  পাড়া বাজার,একতার বাজার,মতির বাজার,শুটিবাড়ী বাজারে লেপ- তোষক কারিগরদের ব্যস্ততা দিন দিন বেড়েই চলছে। দিনরাত সমানে ব্যস্ত অর্ডার নেয়া, আর তৈরি করা লেপ- তোষক সরবরাহ করা নিয়ে। বর্তমানে একটি লেপ বানাতে খরচ নেয়া হচ্ছে ১১০০ থেকে ১৭০০ টাকা পর্যন্ত। কারিগররা জানান, কাপড়, সুতা এবং তুলার দাম বেশি হওয়ায় খরচ আগের তুলনায় এখন অনেক বেশি। মতির বাজারের লেপ-তোষক ব্যবসায়ী  আঃরশিদ জানান, গতবছর ১১০০ টাকায় যে লেপ বানানো হয়েছে এবছর সেটা ১৭০০ টাকা খরচ পড়ছে। একই কথা জানান শুটিবাড়ি বাজারের লেপ- তোষক কারিগর লেবু মিয়া । তিনি জানান, প্রকারভেদে গত বছরের চেয়ে এবছর ২০০ থেকে ৩০০ টাকা খরচ বেশি হচ্ছে একটি লেপ বানাতে। গয়াবাড়ী গ্রামের এনামুল হক এনাম জানান, গতবছর ১১০০ টাকা দিয়ে একটি লেপ তৈরি করেছি, কিন্তু এবার সেই লেপ বানাতে খরচ হয়েছে ১৭০০টাকা। লেপ-তোষক ব্যবসায়ীরা জানান, এবছর জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই লেপ-তোষক তৈরিতে খরচ বেড়ে গেছে। 

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email