রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ডিমলায় গৃহ বধূঁর লাশ উদ্ধার, স্বামী পরিবার পালাতক!

জাহাঙ্গীর আলম রেজা,ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি ঃ
ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নের দক্ষিন সোনাখুলী দুদিয়া পাড়া ৭নং ওয়ার্ড হতে ১ কন্যা সন্তানের জননী সুমি খাতুন (২১) মৃত দেহ উদ্ধার করেছে ডিমলা থানা পুলিশ। এ সময় নিহতর স্বামী আলমগীর (২৫) পিতা সিরাজুল ইসলাম সহ বাড়ীর সকলে পালিয়ে যায়। সুমি খাতুনের পিতার বাড়ী একই ইউনিয়নের উত্তর সোনাখুলী গ্রামের খতিবর রহমানে মেয়ে। ২ বছর আগে স্বামী আলমগীরের সঙ্গে প্রেম করে বিয়ে হয়। এ বিয়ে আলমগীরের পিতা, মাতা কেউ মেনে নেয়নি। দীর্ঘ দিন যাবত সুমির শশুর, শাশুরী মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করে আসছে বলে সুমির আত্মীয় স্বজনেরা জানান। এ বিষয়ে গ্রামবাসী রবিউল ইসলাম, আব্দুল কাইয়ূম, রনিফা আক্তার, এসএম মারিয়া ও ইউপি সদস্য আব্দুল বাকী, গ্রাম পুুলিশ মোজাফ্ফর হোসেনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মৃত সুমির গলায় ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন এবং শরীরে কিটনাশকের গন্ধ পাওয়া গেছে। তবে গ্রামের কেহই আত্মহত্যার কথা বলেনি। এ বিষয়ে ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান বলেন ঘটনাটি রহস্য জনক ময়না তদন্তে এ প্রকৃত রহস্য বেরিয়ে আসবে। মৃত সুমির পিতা ডিমলা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছে, পুলিশ বলেছেন আপাতত ডিমলা থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে যার মামলা নং-  ১১/১৬ তারিখ- ০৯/০৯/২০১৬ ইং এ প্রসঙ্গে ডিমলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন লাশ উদ্ধার করে শনিবার সকালে জেলা মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে, ময়না তদন্তের রিপট আসলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

Spread the love