শুক্রবার ১২ এপ্রিল ২০২৪ ২৯শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ডিমলায় চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধার।

জাহাঙ্গীর আলম রেজা, প্রতিনিধি, ডিমলা (নীলফামারী)ঃ নীলফামারীর ডিমলায় শনিবার রাতে চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হলেও চোরচক্র প্রভাবশালী হওয়ায় প্রশাসন নিরব ভুমিকা পালন করার অভিযোগ পাওয়া যায়।

 

জানা যায়, গত মঙ্গলবার সকালে সুটিবাড়ী বাজার থেকে জটুয়াখাতা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও দক্ষিন খড়িবাড়ী গ্রামের আব্দুস সাত্তারের পুত্র মিজানুর রহমানের ১টি মটরসাইকেল চুরি হয়। এলাকাবাসী শুটিবাড়ী বাজার সংলগ্ন খান ডিজিটাল ষ্টুডিও মালিক হুমায়ুন রহমানের পুত্র রাশেদ (২৫) কে মটরসাইকেলটি চুরি করে নিয়ে যেতে দেখে।

 

পড়ে বিষয়টি টেপাখড়িবাড়ীর ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম শাহিন ও গয়াবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান শরিফ ইবনে ফয়সাল মুনকে অবগত করেন। ইউপি চেয়ারম্যানদ্বয় রাশেদকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে চুরির বিষয়টি স্বীকার করেন।

 

সে জানায় চুরিকৃত মটরসাইকেলটি জলঢাকায় রয়েছে ঘটনার ৪দিন পর চুরি যাওয়া মটরসাইকেলটি চেয়ারম্যানদ্বয় উদ্ধার করে। চুরি যাওয়া মটরসাইকেলটি উদ্ধার হলেও চুরি কাজে জড়িত থাকায় রাশেদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন না করায় এলাকায় চরম ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।

 

এলাকাবাসীর অভিযোগ রাশেদ ডিমলার বিভিন্ন স্থানে মটরসাইকেল চুরির সাথে জড়িত গত ১ মাসে খগাখড়িবাড়ীর ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম লিথনসহ উপজেলায় ৮টি মটরসাইকল চুরি হয়েছে। রাশেদ ডিজিটাল ষ্টুডিও ব্যবসার আড়ালে বিভিন্ন স্থানে চোরাইকৃত মটরসাইকেল কেনা-বেচার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ পাওয়া যায়।

 

ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম শাহিন জানায়, স্থানীয়রা অভিযোগ করেন চুরিকৃত মটরসাইকেলটি রাশেদের বাড়ীতে ছিল। পরে রাতের অন্ধকারে সে জলঢাকা উপজেলায় জনৈক ব্যক্তির নিকট বিক্রি করে দেয়।

 

ইউপি চেয়ারম্যান শরিফ ইবনে ফয়সাল মুন জানায় চোরাইকৃত মটরসাইকেলটি উদ্ধার করে তার জিম্মায় রাখা হয়েছে। বিষয়টি পুলিশকে অবগত করা হয়েছে। চোরাইকৃত মটরসাইকেলটি রাশেদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হলেও চোরচক্রের হোতা রাশেদ প্রভাবশালী হওয়া এখন রয়েছে ধরা ছোয়ার বাইরে। ডিমলা থানার ওসি শওকত আলী জানায় মটরসাইকেল চুরির বিয়ষটি ইউপি চেয়ারম্যান মৌখিক ভাবে জানিয়েছে বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Spread the love